গুন্ডা পাঠিয়ে বাংলার ক্ষমতা দখল করতে চায় বিজেপি: মমতা  

192
ফাইল ছবি।

উত্তরবঙ্গ সংবাদ ডিজিটাল ডেস্ক: ভোট আসন্ন, তার আগে প্রচারে ঝড় তুলেছেন তৃণমূল, বিজেপি, সংযুক্ত মোর্চা প্রার্থীরা। ভোট যুদ্ধে কেউ কাউকে এক ইঞ্চিও জমি ছাড়তে নারাজ তাঁরা। বাংলার মসনদ দখলের লক্ষ্যে গেরুয়া শিবিরের একের পর এক শীর্ষ নেতা ভোটের প্রচারে রাজ্যে আসছেন। ক্ষমতা ধরে রাখতে মরিয়া ঘাসফুল শিবিরের নেতারাও জোরকদমে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। নন্দীগ্রামে প্রচারে গিয়ে পায়ে চোট পেয়েছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই চোট নিয়েই তিনি প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। বৃহস্পতিবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার অধীন গড়বেতা, কেশিয়াড়ি ও খড়গপুরে জনসভা করেন তৃণমূল সুপ্রিমো। সভাগুলিতে তিনি বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ করেন।

এদিন কলাইকুন্ডার সভা থেকে বিস্ফোরক অভিযোগ করেন মমতা। তৃণমূল সুপ্রিমোর অভিযোগ, তাঁর পা উড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে নন্দীগ্রামে। পা গুঁড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে। দলনেত্রীর এমন মন্তব্যে শোরগোল পড়ে গিয়েছে রাজ্য–রাজনীতিতে। বৃহস্পতিবারই এরাজ্যে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আর এদিনই তৃণমূল নেত্রী তীব্র আক্রমণ করেন বিজেপিকে। তিনি বলেন, ‘‌বিজেপিকে ভোট দেবেন না। কোনওমতেই বিজেপিকে বাংলার ক্ষমতা দখল করতে দেওয়া যাবে না। পায়ে ব্যথা নিয়েই আপনাদের সঙ্গে এদিন দেখা করতে এসেছি।’‌

- Advertisement -

গড়বেতা, কেশিয়াড়ি ও খড়গপুরের কলাইকুন্ডা-তিনটি জনসভা থেকেই গেরুয়া শিবিরের উদ্দেশে তীব্র আক্রমণ শানান তৃণমূল সুপ্রিমো। কেশিয়াড়িতে তিনি বলেন, ‘বাইরের গুন্ডাবাহিনী পাঠিয়ে বিজেপি বাংলা দখল করতে চায়। গুন্ডারা এসে ভয় দেখাচ্ছে।‘‌

নন্দীগ্রামে পায়ে চোট পান মমতা। সেই প্রসঙ্গে কলাইকুন্ডার সভায় তিনি বলেন, ‘এর আগেও‌ আমার আঘাত লেগেছে। মাথায় সেলাই পড়েছে। কোমরে লাঠির বাড়িও মেরেছিল। ‌হাত ভেঙ্গেছিল। বাকি ছিল শুধু পা-ই। সেটাও এবার ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা করেছে ওরা।’‌ মহিলা ভোটারদের উদ্দেশে মমতার বার্তা, গুন্ডারা ভোট লুটের চেষ্টা করলে হাতা–খুন্তি নিয়ে তেড়ে যান।