বিজেপিকর্মীদের খুন করাচ্ছেন মমতা, অভিযোগ রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের

275

বর্ধমান: ক্ষমতা দখলের লোভে রাজ্যে একটার পর একটা বিজেপিকর্মীকে খুন করাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলীর বিজেপিকর্মী শুকদেব প্রামাণিককে খুনের ঘটনা নিয়ে সোমবার এমনই অভিযোগ করলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক তথা রাঢ়বঙ্গের বিজেপি পর্যবেক্ষক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি পূর্বস্থলীর নিমদহ এলাকার বিজেপিকর্মী শুকদেব প্রামাণিকের মৃত্যুর ঘটনারও সিবিআই তদন্ত দাবি করেন। দলের কর্মী খুনের প্রতিবাদে বিজেপিকর্মীরা এদিনও কালনা মহকুমার একাধিক রাস্তার উপর টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করে রেখে বিক্ষোভ দেখায়। অবরোধ বিক্ষোভের জেরে জেলার একাধিক সড়কপথে যানবাহন চলাচল দীর্ঘক্ষণ থমকে থাকে।

পূর্বস্থলী নিমদহ চাঁদপাড়া এলাকার সক্রিয় বিজেপিকর্মী শুকদেব প্রামাণিক(৩৫) দু’দিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন। রবিবার দুপুরে বাড়ির অদূরের জলাশয় থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার হয়। শুকদেবের মুখ ও মাথার অংশে আঘাতের ক্ষত দেখে পরিবারের লোকজন ও বিজেপি নেতৃত্ব দাবি করেন শুকদেবকে খুন করে দেহ জলাশয়ে ফেলে দেওয়া হয়েছিল।

- Advertisement -

ছেলেকে খুনের ঘটনায় এলাকার শাসকদলের লোকজন জড়িত বলে দাবি করে মৃতর পরিবার রবিবারই পূর্বস্থলী থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ অভিযোগের তদন্ত শুরু করলেও এখনও কেউ গ্রেপ্তার হয়নি। তা নিয়েও ক্ষোভে ফুঁসছেন বিজেপি নেতা-কর্মীরা।

নিহত বিজেপিকর্মী শুকদেব প্রামাণিকের বাড়িতে বসেই রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন মুখ্যমন্ত্রীকে কড়া ভাষায় আক্রামণ করেন। তিনি অভিযোগ করেন “বাংলার ক্ষমতা দখলের লোভে একটার পর একটা বিজেপিকর্মীকে খুন করাচ্ছে মমতাবন্দ্যোপাধ্যায়। তাই পুলিশী তদন্তের উপরে তাঁদের কোন ভরসা নেই। পুলিশ জলে ডুবে শুকদেবের মৃত্যু হয়েছে বলে দেখাতে চায়ছে। এ কারণেই তাঁরা বিজেপি নেতৃত্ব শুকদেব প্রামাণিকের মৃত্যুর ঘটনার সিবিআই তদন্ত চাইছেন। একই সঙ্গে রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় হুঁশিয়ারি দেন পুলিশ অবিলম্বে প্রকৃত দোষীদের গ্রেপ্তার না করলে বিজেপি বৃহত্তর আন্দোলনে নামবে। বর্ধমান-কাটোয়া রোড সহ রাজ্য জুড়ে অবরোধ বিক্ষোভ শুরু হবে।” নিহত বিজেপিকর্মীর পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস দেন রাজুবাবু। কালনার বিজেপি নেতা ধনঞ্জয় হালদার আবার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন পুলিশ শুকদেবের খুনিদের গ্রেপ্তার না করলে বিজেপি সমগ্র কালনা মহকুমাজুড়ে জঙ্গি আন্দোলনে নামবে।

যদিও তৃণমূলের রাজ্য মুখপাত্র দেবু টুডু জানিয়েছেন, “রাজ্য সরকার যে উন্নয়ন কাজ করেছে তার জন্য রাজ্যবাসী ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দেখতে চায়ছেন। এই বিষয়টা ভালভাবেই বুঝেগেছে বিজেপি নেতৃত্ব। তাই বিজেপি নেতারা এখন মৃত্যু নিয়ে ঘৃণ্য রাজনীতি করা শুরু করেছে। তবে এইসব করে কিছু লাভ হবে না। বাংলার মানুষ ওদের যোগ্য জবাব দেবে।”