কলকাতা, ৩০ অক্টোবরঃ কাশ্মীরে জঙ্গিদের গুলিতে নিহত পাঁচ বাঙালি শ্রমিকের পরিবারকে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার মুখ্যমন্ত্রী টুইট করে জানান, ঘটনায় তিনি হতবাক। নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি। রাজ্য সরকার সবরকম সাহায্য করবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

রাজ্য সরকার সূত্রে জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই শেখ কামরুদ্দিন, শেখ মহম্মদ রফিক, শেখ নিজামুদ্দিন, শেখ মুরসলিন, মহম্মদ রফিক শেখ পাঁচজনের দেহ ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নিহতদের প্রত্যেকের বাড়ি মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘি থানা এলাকায়। দেহ ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে দিল্লির রেসিডেন্সিয়াল কমিশনের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। সব ব্যবস্থা করার জন্য দুর্যোগ মোকাবিলা মন্ত্রী জাভেদ খান দপ্তরের সচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন। জাভেদ খান জানিয়েছেন, দ্রুত যাতে দেহগুলি ফিরিয়ে আনা যায় সে ব্যাপারে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নিহতদের পরিবারপিছু পাঁচ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে নিহতদের পরিবারকে সাহায্যের জন্য অনুরোধ করেছেন বহরমপুরের সাংসদ অধীররঞ্জন চৌধুরিও। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে নিহতদের পরিবারের সদস্যদের চাকরির আর্জি জানান কংগ্রেস সাংসদ। পাশাপাশি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সঙ্গে যোগাযোগ করেও দেহ আনার বিষয়টি দেখছেন তিনি।

নিহতদের মধ্যে শেখ মুরসলিন, শেখ মহম্মদ রফিক, শেখ নিজামুদ্দিন-এর বাড়ি সাগরদিঘির বোখরা-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের ব্রাহ্মণী গ্রামে। বাকি দু’জনের বাড়ি মোড় গ্রাম পঞ্চায়েতের বাহলনগরে। এদিন সকালেই কাশ্মীরের শ্রমিকদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান অধীররঞ্জন চৌধুরি, রাজ্যের শ্রম প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন, তৃণমূল সাংসদ খলিলুর রহমান। স্বজনহারাদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন তাঁরা। এই হত্যাকাণ্ডের জন্য কেন্দ্রকেই দায়ী করেছেন অধীর।