‘যো বোলে সো নিহাল’ ধ্বনি দিয়ে গুরুদুয়ারায় মমতা, চেয়ে খেলেন হালুয়া

237

হাসিমারা: ‘যো বোলে সো নিহাল, সৎশ্রী আকাল’ ধ্বনি দিয়ে হাসিমারা গুরুদুয়ারায় ঢুকে শিখ ধর্মাবলম্বীদের মন জয় করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি গুরুদুয়ারার সমস্যার কথা শুনে সমস্যার সমাধানের আশ্বাসও দিলেন। মুখ্যমন্ত্রীর এই ঝটিকা সফরে আপ্লুত গুরুদুয়ারা ও সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দারা। হাসিমারায় ফালাকাটার সরকারি অনুষ্ঠান শেষ করে হাসিমারায় পৌঁছোন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। হাসিমারা সেনা ছাউনি সংলগ্ন সুভাষিণী চা বাগানের মাঠে বেলা ২টা ১৫ মিনিট নাগাদ অস্থায়ী হেলিপ্যাডে মুখ্যমন্ত্রীর চপার নামে।

এরপর ৩১ সি জাতীয় সড়ক ধরে মালঙ্গি বনবাংলোর দিকে মুখ্যমন্ত্রীর বিশাল কনভয় এগিয়ে যায়। বনবাংলোর কিছুটা আগেই মুখ্যমন্ত্রী হাসিমারা গুরুদুয়ারার সামনে গাড়ি থেকে নেমে মুখ্যমন্ত্রী প্রবেশ করেন গুরুদুয়ারায়। গুরুদুয়ারায় ঢুকেই “যো বোলে সো নেহাল, সৎশ্রী আকাল” ধ্বনি দেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে গলা মেলান উপস্থিত শিখ ধর্মাবলম্বীরাও। গুরুদুয়ারায় মাথা ঠেকিয়ে হালুয়া প্রসাদ চেয়ে খান মুখ্যমন্ত্রী।

- Advertisement -

এরপর গুরুদুয়ারা কর্তৃপক্ষের কাছে তাঁদের সমস্যার কথাও জানতে চান‌ মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে যথাযথ নিকাশি ব্যবস্থা নেই শুনে গুরুদুয়ারা কর্তৃপক্ষকে লিখিত দাবিপত্র দেওয়ার পরামর্শ দিয়ে বাংলোর উদ্দেশে রওনা হন তিনি। বাংলোতে ঢোকার মুখে ফের একবার গাড়ি থেকে নেমে রাস্তার পাশে কাজ করতে থাকা শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে তাঁদের সমস্যার কথা শোনেন মুখমন্ত্রী। সেখানে বনকর্মীদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও তিনি কথা বলে বাংলোতে প্রবেশ করেন। গুরুদুয়ারার সঞ্চালক চিরঞ্জিত সিং জানান, মুখ্যমন্ত্রীর আন্তরিকতায় তাঁরা মুগ্ধ।