লুটপাটে বাধা দেওয়ায় ব্যবসায়ীকে খুনের চেষ্টা

358

রায়গঞ্জ: লুটপাটে বাধা দেওয়ায় এক ব্যবসায়ীর গলার নলি কেটে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে ইটাহার থানার শিবরামপুর গ্রামে। গুরুতর জখম ওই ব্যবসায়ীকে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখান থেকে তাঁকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে রেফার করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, জখম ওই ব্যবসায়ীর নাম জ্যোতিষ দেবশর্মা (৫০)। অবিবাহিত ওই ব্যক্তি বাড়িতে একাই থাকতেন। পৈতৃক বাড়ি ইটাহার থানার গুসিয়াখণ্ড থেকে এক কিলোমিটার দূরে বাড়ি করেছেন ওই ব্যবসায়ী। টাকা লুট করার জন্য ওই ব্যবসায়ীকে গলার নলি কেটে খুন করার চেষ্টা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে অনুমান পুলিশের।

- Advertisement -

জানা গিয়েছে, প্রায় ১২ জনের দুষ্কৃতী দলটি লুটপাটের উদ্দেশ্যে জ্যোতিষবাবুর বাড়িতে জড়ো হয়েছিল। লুটপাটে বাধা দেওয়ায় জ্যোতিষবাবুর গলার নলি কেটে খুনের চেষ্টা করে দুষ্কৃতীরা। সেই সময় তাঁর চিৎকারে আশপাশের লোকজন সেখানে জড়ো হয়ে এক দুষ্কৃতীকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন। তবে বাকিরা সেখান থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। ওই দুষ্কৃতীকে ধরে গণপিটুনি দেন স্থানীয়রা। এরপর ইটাহার থানার পুলিশ গিয়ে ওই দুষ্কৃতীকে ধরে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের কয়েদি রুমে ভর্তি করে।

বারবার এহেন ঘটনায় আইন-শৃঙ্খলা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। রায়গঞ্জ জেলা পুলিশ এলাকায় দুষ্কৃতী হামলার ঘটনা নতুন নয়। কিছুদিন আগেও রায়গঞ্জ থানার বারদুয়ারী এলাকায় এক ওষুধ ব্যবসায়ীকে লুটপাটের চেষ্টা করেছিল। পুজোর আগে দুষ্কৃতী কার্যকলাপ জেলা পুলিশ এলাকার বিস্তীর্ণ এলাকায় আরও বাড়তে চলেছে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ব্যবসায়ী মহল ও রাজনৈতিক মহল।

গোটা ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান ইটাহার থানার ওসি অভিজিৎ দত্ত। পুলিশ সুপার সুমিত কুমার বলেন, ‘ইটাহারে একটি ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।’