চাঁচল, ৯ জুনঃ ওঝার কাছে যেতে না দেওয়ায় বচসা। এর জেরে স্ত্রী এবং ছেলেকে কুপিয়ে আত্মঘাতী এক ব্যক্তি। ঘটনাটি হরিশ্চন্দ্রপুরের তেঁতুলবাড়ি এলাকার। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম ভাজ্যু ওরাওঁ (৩৮)। গুরুতর জখম অবস্থায় মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিত্সাধীন মৃতের স্ত্রী ও ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত কয়েকদিন ধরে অভাবের তাড়নায় মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন ভাজ্যু। পেশায় দিনমজুর ভাজ্যুর কোনও কাজ জুটছিল না। তাঁর অবসাদ এবং সৌভাগ্য ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি করে এক ওঝা। সেই ওঝার পাল্লায় পড়ে তার কাছে যাওয়া স্থির করে ভাজ্যু। শনিবার রাতে তার কাছে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্ত্রী রানঝো এবং ১০ বছরের সন্তান মহাদেব তাঁকে বাধা দিলে বচসা শুরু হয়। রাগের মাথায় ধারাল অস্ত্র দিয়ে রানঝো এবং মহাদেবকে কোপায় ভাজ্যু। রক্তাক্ত অবস্থায় দুজনেই অচেতন হয়ে লুটিয়ে পড়ে। এরপর ভাজ্যু গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতি হন।

ঘটনাটি জানতে পেরে স্থানীয় বাসিন্দারা রানঝো এবং মহাদেবকে প্রথমে হরিশ্চন্দ্রপুর হাসপাতাল নিয়ে যান। পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক হওয়ায় পরে মা ও ছেলেকে পাঠানো হয় মালদা মেডিকেলে। এদিকে, পুলিশ ভাজ্যুর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ।