কালীপুজোতেও মণ্ডপ ‘নো এন্ট্রি জোন’!

282
ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক: দুর্গাপুজোর পর কালীপুজোতেও মণ্ডপ নো এন্ট্রি জোন হিসেবে থাকছে। বৃহস্পতিবার এমনই নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। মণ্ডপের বাইরে ৫ মিটার পর্যন্ত জায়গা নো এন্ট্রি জোন ধরা হবে। ৩০০ মিটার আয়তনের মণ্ডপে ৪৫ জন পর্যন্ত স্বেচ্ছাসেবক থাকতে পারবেন। এর কম আযতনের মণ্ডপে সেই সংখ্যা হবে ১৫।

পাশাপাশি এদিন কালীপুজোয় বাজি পোড়ানোর ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে হাইকোর্ট। বাজি বন্ধে ইতিমধ্যে রাজ্যবাসীর প্রতি সরকার আবেদন জানিয়েছে। সেই আবেদনেই এদিন সিলমোহর দিল হাইকোর্ট। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চের বক্তব্য, রাজ্য সরকারের আবেদন মানা উচিত। দুর্গাপুজোর আগে দেওযা হাইকোর্টের সমস্ত নির্দেশ পালনে রাজ্যের ভূমিকায় এদিন সন্তোষপ্রকাশ করেন বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

- Advertisement -

বাজির ওপর নিষেধাজ্ঞা শুধু কালীপুজো ও দীপাবলির জন্য নয়, ছটপুজো, জগদ্ধার্থী, এমনকি কার্তিক পুজোর জন্যও বলবৎ থাকবে। করোনা সংক্রামিত ও শ্বাসকষ্টের রোগীদের অসুবিধার কথা উল্লেখ করে বায়ু ও শব্দদূষণ করে এমন সব ধরনের বাজি নিষিদ্ধ করার আবেদন জানিয়ে হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন অনুসূয়া ভট্টাচার্য। বৃহস্পতিবার দুর্গাপুজোর মূল মামলার সঙ্গে এই সম্পর্কিত মামলারও শুনানি হয়। বাজি নিষিদ্ধ করার একই নির্দেশে কালীপুজো, জগদ্ধার্থী পুজোতেও দুর্গাপুজোর মতো সমস্ত বিধি বজায় রাখার কথা বলা হয়েছে।

দুর্গাপুজোর মতো সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি কালীপুজোতেও বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এর আগে নিষেধাজ্ঞার ঘেরাটোপে করোনাবিধি মেনে নমো নমো করে দুর্গাপুজো হয়েছে। আদালতের নির্দেশে কালীপুজোর ক্ষেত্রেও মণ্ডপে প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা বজায় থাকছে। এই পরিস্থিতিতে ফাঁপরে পড়েছেন পুজো উদ্যোক্তারা। বালিগঞ্জ সর্বজনীন শ্যামাপুজো পরিষদের সম্পাদক ইন্দ্রনীল সরকার বলেন, দুর্গাপুজো নিয়ে হাইকোর্টের রায় যে সব বড় পুজোর ক্ষেত্রে কার্যকর হবে, তা আগেই বুঝেছিলাম। আমরা এবছর কম বাজেটে সুরক্ষাবিধি মেনে কালীপুজোর আয়োজন করছি।

উত্তর কলকাতার বিখ্যাত ফাটাকেষ্টর পুজোর উদ্যোক্তারা জানান, প্রতিবার ৬০ হাজার দর্শনার্থী এই মণ্ডপে ভিড় জমান। এবার প্যান্ডেল ও আয়োজন একেবারেই ছোট করা হচ্ছে।