নয়াদিল্লি, ১২ অক্টোবরঃ প্রকাশ্যে আসা যৌন নিগ্রহের অভিযোগগুলির বিষয়ে পদক্ষেপ করতে চলেছে কেন্দ্র। আজ কেন্দ্রীয় নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী মানেকা গান্ধি জানান, #MeToo আন্দোলনের মাধ্যমে প্রকাশ্যে আসা যৌন নিগ্রহের ব্যপারে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে বিচারবিভাগ ও আইন সংক্রান্ত বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হবে।  চার সদস্যের একটি প্যানেল গড়ার প্রস্তাব দেন তিনি। ওই চার সদস্য হবেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারক। ওই প্যানেল অভিযোগ শোনার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবেন।

মানেকার বক্তব্য, বিগত ২৫ বছর ধরে এরকম ঘটনা ঘটে চলেছে। কিন্তু, এতবছর বাদে কী করে সেইসমস্ত অভিযোগ প্রমাণিত হবে, তা নিয়েও উদ্বেগ শোনা গিয়েছে নারীকল্যাণ মন্ত্রীর কথায়।

নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রকের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে মানেকা গান্ধি লেখেন, ‘প্রতিটি অভিযোগের পিছনে যে কষ্ট ও মানসিক আঘাত রয়েছে তা বিশ্বাস করছি। কর্মক্ষেত্রে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না।’

চলতি সপ্তাহের শুরুতে মানেকা গান্ধি আরেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এমজে আকবরের বিরুদ্ধে ওঠা যৌন নিগ্রহের অভিযোগ নিয়ে তদন্তের কথা জানান। বিদেশমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী এমজে আকবরের বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগ দায়ের করেন প্রিয়া রামানি। পরে এধরণের অভিযোগ এনেছেন আরও কয়েকজন মহিলা। এই বিষয়ে মানেকা গান্ধি বলেন, অভিযোগের তদন্ত হওয়া উচিত। ক্ষমতায় থাকাকালীন পুরুষরা এই ধরনের কাজ হামেশাই করে থাকেন।

আজ মানেকা গান্ধি বলেন, ১০-১৫ বছর পরও যৌন নিগ্রহের অভিযোগ যাতে করা যায় সেই বিষয়ে অনুমোদন দেওয়া উচিত।