সাজঘরে লক্ষ্মণকে ধমক দেন গ্রেগ

মুম্বই : ভারতীয় ক্রিকেটে গ্রেগ চ্যাপেল মানেই এক বিতর্কিত অধ্যায়। সেই বিতর্কে পারদ চড়েছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সহ টিম ইন্ডিয়ার একাধিক সিনিয়ার ক্রিকেটারকে ঘিরে। যার সূত্রপাত ঘটেছিল ২০০৫-এর জিম্বাবোয়ে সফরে। যেখানে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর পরামর্শ দেন কোচ চ্যাপেল। সেই বিতর্কের জল গড়িয়েছিল বহুদূর।

তবে একা সৌরভ নন, সেই সফরে আরও এক বিতর্কের সাক্ষী ছিল ভারতীয় ড্রেসিংরুম। ১৬ বছর পর সেই ঘটনা ফাঁস করেছেন সঞ্জয় মঞ্জরেকার। সেই বিতর্কে গুরু গ্রেগের উলটোদিকে ছিলেন ভিভিএস লক্ষ্মণ। হারারে-তে টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন লক্ষ্মণের সঙ্গে ঝামেলায় জড়ান চ্যাপেল। আঙুলে চোট পাওয়ার দরুন শুশ্রূষা করতে সাজঘরে ফেরত আসেন লক্ষ্মণ। সেইসময় পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নামা ফিল্ডার স্লিপে ক্যাচ মিস করেন। যা দেখে মেজাজ হারান চ্যাপেল এবং সরাসরি লক্ষ্মণকে দোষারোপ করে বসেন ভারতীয় দলের কোচ। লক্ষ্মণকে ধমক দিয়ে চ্যাপেল জিজ্ঞাসা করেন, আঙুলের চোট জীবনঘাতী ছিল কি না? চ্যাপেলের প্রশ্নে স্বভাবতই হতবাক হয়ে যান ভিভিএস।

- Advertisement -

১৬ বছর আগের ঘটনা উঠে এসেছে মঞ্জরেকারের গলায়। ভারতীয় ধারাভাষ্যকার বলেছেন, টেস্ট চলাকালীন কয়েকজন পরিবর্ত ক্রিকেটারকে প্র‌্যাকটিস সেশন দিচ্ছিলেন গ্রেগ চ্যাপেল। ৩০-৪০ মিনিট পর সাজঘরে ফেরার পথে একজন পরিবর্ত ফিল্ডারের স্লিপে ক্যাচ মিসের ঘটনা তাঁর নজরে পড়ে। কেন সেই পরিবর্ত ক্রিকেটার মাঠে নেমেছেন, জানতে সাজঘরে ফিরে তিনি আবিষ্কার করেন কফি হাতে আঙুলের চোটে বরফ লাগাচ্ছেন লক্ষ্মণ। যা দেখে কার্যত মেজাজ হারিয়ে অজি কোচ সরাসরি ভারতীয় তারকার কাছে জিজ্ঞাসা করে বসেন, আঙুলের চোট জীবনঘাতী ছিল কি না। গ্রেগের কৈফিয়ত তলবে হতবাক হয়ে যান ভিভিএস। উলটে চ্যাপেলের ধমক হজম করতে হয় তাঁকে। সঙ্গে গ্রেগ স্পষ্ট হুঁশিয়ারিও দেন, ভবিষ্যতে জীবনঘাতী চোট না লাগলে কখনও যেন ভুলেও ম্যাচ চলাকালীন মাঠ থেকে বের না হন লক্ষ্মণ।

ভিভিএসের মতো সিনিয়ার ক্রিকেটারের সঙ্গে গ্রেগ চ্যাপেলের রুঢ় আচরণে যে গোটা সাজঘর স্তম্ভিত হয়ে গিয়েছিল, জানাতে ভোলেননি মঞ্জরেকার।