গেরুয়া শিবিরে যোগ শাসকদলের ‘বিক্ষুব্ধ’ নেতা মনোজ রায়ের

185

জামালদহ: অনেকদিন ধরেই তিনি ‘বেসুরো’ গাইছেন। এবার তা পরিষ্কার হল। শেষ পর্যন্ত তৃণমূল সংশ্রব ত্যাগ করে বিজেপিতে নাম লেখালেন শাসকদলের মেখলিগঞ্জের ‘বিক্ষুব্ধ’ নেতা মনোজ রায়। বুধবার জামালদহে অনুষ্ঠিত বিজেপির জনসভায় কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামানিকের হাত ধরে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিলেন তিনি। ব্লক সহ-সভাপতি ছাড়াও এদিনের সভায় তৃণমূল পরিচালিত কুচলিবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান জয়শ্রী রায়ও বিজেপিতে যোগদান করেন। সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক। প্রকাশ্য সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে, তৃণমূলকে উৎখাত করার ডাক দিয়েছেন তিনি।

বিজেপির মেখলিগঞ্জ দক্ষিণ মন্ডলের সভাপতি দধিরাম রায় জানিয়েছেন, এদিন তৃণমূল নেতা মনোজ রায় ও কুচলিবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ছাড়াও তৃণমূলের একঝাঁক নেতা-কর্মী বিজেপিতে যোগদান করেছেন। তাঁদের মধ্যে যেমন রয়েছেন তৃণমূলের হলদিবাড়ি ব্লক যুব সভাপতি বিষ্ণু রায়, তেমনি আছেন শাসকদলের উছলপুকুরি অঞ্চলের প্রাক্তন যুব সভাপতি পরিমল রায় ডাকুয়া প্রমুখ। এদিন কুচলিবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের অশোক রায় নামে এক সদস্যও দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন। এদিনের জনসভায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্য বিজেপির সদস্য দীপ্তিমান সেনগুপ্ত, কোচবিহার জেলা সম্পাদক জ্যোতিবিকাশ রায়,জলপাইগুড়ি জেলা সহ সভাপতি বঙ্কিম রায় প্রমুখ। বিজেপির দাবি, দলবদলের হিড়িক চলছে। বিজেপির দলীয় সভাগুলি এখন আক্ষরিক অর্থেই ‘যোগদান মেলা’-তে পরিণত হয়েছে।

- Advertisement -

মনোজবাবু বিজেপিতে গেলেও দলের কোনও ক্ষতি হবে না বলে দাবি করেছেন তৃণমূলের মেখলিগঞ্জের বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান। তিনি বলেন, ‘এর জেরে দলে কোনও প্রভাব পড়বে না।’

এ ব্যাপারে তৃণমূলের মেখলিগঞ্জ ব্লক কমিটির সভাপতি উদয় রায় বলেন, ‘মনোজবাবু দলবদল করাতে বিন্দুমাত্র ক্ষতি হয়নি। আগে থেকেই বিজেপির সংশ্রব ছিল ওই নেতার। নিজে থেকেই সরে যাওয়ায় আখেরে দলেরই লাভ হল।’