মরিচবাড়ির মরিচ পাড়ি দিচ্ছে ত্রিপুরায়

62

পুণ্ডিবাড়ি: মরিচবাড়িতে উৎপাদিত মরিচ যাচ্ছে ত্রিপুরায়। উৎপাদিত ফসলের ভালো দাম পেয়ে খুশি চাষিরাও। ওই গ্রামের পাশাপাশি পাশের গ্রামগুলির চাষিরাও লাভের আশায় লঙ্কা চাষ করে লক্ষ্মী লাভ করছে।

কোচবিহার-২ ব্লকের গ্রাম মরিচবাড়ি। লঙ্কার উৎপাদন ভালো হওয়ায় জায়গার নাম হয়েছে মরিচবাড়ি। আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহার জেলা সীমান্তের এই গ্রাম থেকে উৎপাদিত বিপুল পরিমাণ লঙ্কা যাচ্ছে ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায়। আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহার জেলায় পাইকারি লঙ্কা বিক্রি হচ্ছে ১০-১৪ টাকা প্রতি কেজি দরে। খোলা বাজারে দাম থাকছে কেজি প্রতি ২০-২৫ টাকা। কোনও জায়গায় ৩০ টাকা। তবে সেই টাকা বেশির ভাগটাই পাচ্ছে সবজি বিক্রেতা এবং পাইকাররা। জেলায় লঙ্কার কম দাম পেয়ে বিভিন্ন পাইকারের মাধ্যমে চাষিরা বাইরের রাজ্যে লঙ্কা পাঠাচ্ছে।

- Advertisement -

তপশিখাতা গ্রামের পাইকার অমিত রায় জানান, আগরতলা বাজার থেকে লঙ্কার অর্ডার আসে। সেই হিসেবে চাষিদের কাছ থেকে লঙ্কা নেওয়া হয়। জানুয়ারি মাস থেকেই ভিন রাজ্যে লঙ্কা পাঠানো হচ্ছে। বর্তমানে রাজ্যে কার্যত লকডাউন জারি হওয়ায়, বড় গাড়িতে লঙ্কা পাঠানো যাচ্ছে না। ছোট পিকআপ ভ্যানের মাধ্যমে লঙ্কা পাঠাতে হচ্ছে। এতে খরচও অনেকটা বেড়েছে। মরিচবাড়ি গ্রাম সহ পাশের গ্রাম কুন্তীরঘাট, ইটভাটা, তপশিখাতা, পররপার গ্রামের চাষিরাও জানান, লঙ্কা বাইরের রাজ্যে পাঠিয়ে লাভ হচ্ছে। এই বিষয়ে কোচবিহার-২ ব্লকের কৃষি অধিকর্তা সোহিনী তালুকদার জানান, ওই এলাকার কৃষকরা আলুর সঙ্গেই লঙ্কা চাষ করায় অন্য জমির প্রয়োজন হয় না। এই লঙ্কা কলকাতা ছাড়া অন্য রাজ্যেও পাঠানো হয়।