টাকা নয়, এটিএম থেকে মিলছে মাস্ক

58

বালুরঘাট: টাকা নয়, এই এটিএম থেকে মিলছে মাস্ক। হ্যাঁ, ঠিকই শুনেছেন। বালুরঘাটের বিভিন্ন জনবহুল এলাকায় বসানো প্রতীকি এটিএমগুলি থেকে সহজেই মাস্ক পেয়ে যাচ্ছেন পথচলতি লোকজন।

করোনা রুখতে মাস্ক অপরিহার্য। নাক ও মুখের ছিদ্র দিয়ে যাতে করোনা ভাইরাস কোনওভাবেই শরীরে প্রবেশ করতে না পারে, সে বিষয়ে বারবার সতর্ক করছেন চিকিৎসক থেকে প্রশাসনিক কর্তা সকলেই। তারপরেও কিন্তু সাধারণ মানুষের মধ্যে মাস্ক পরার অনীহা দেখা যাচ্ছে। পুলিশ জরিমানা করেও, মাস্ক পরানোর অভ্যেস করাতে পারছে না। দেশজুড়ে যখন করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে মৃত্যুর তাণ্ডব চলছে, তখনই এই মাস্ক সচেতনতায় অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে বালুরঘাটের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘উৎসাহ’। অটোমেটিক মেশিনের মধ্য দিয়ে যেমন টাকা বের হয়, তেমনি সেই এটিএমের অর্থই বদলে দিয়েছে এই সংগঠন। এখানে এটিএম মানে ‘অলটাইম মাস্ক’। আদতে এটি একটি বাক্স। যার ভেতর থেকে প্রয়োজনমতো মাস্ক বের করে নিতে পারবেন পথচলতি মানুষ।

- Advertisement -

বালুরঘাট শহরের বড়বাজার, থানামোড়, পুর বাসস্ট্যান্ড এলাকাতে প্রচুর মানুষের আনাগোনা লেগে থাকে। মূলত যাঁদের মাস্ক পরার অভ্যাস এখনও হয়ে ওঠেনি, অথবা রুমাল বা কাপড়ের আঁচল দিয়ে নাক মুখ আড়াল করে ঘুরছেন, তাঁদের জন্যই এই এটিএম। এদিন এটিএমগুলি চালুর সময় উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট চিকিৎসক সৌরভ কুন্ডু, শিক্ষক অলিন্দ চক্রবর্তী, সমাজসেবী মল্লিকা শিকদার, সহ বিভিন্ন পেশার মানুষ। উৎসাহের এই উদ্যোগে খুশি পথ চলতি মানুষেরা। উৎসাহের সম্পাদক সরোজ কুন্ডু জানান, করোনা অতিমারি থেকে বাঁচতে মাস্ক পরা একপ্রকার বাধ্যতামূলক করেছে প্রশাসন। আর সেই কারণে প্রত্যেকটি মানুষকে মাস্ক পরাতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।