রাজমিস্ত্রিকে ডেকে সর্বস্ব লুটের প্রতিবাদে বিক্ষোভে রাজমিস্ত্রি সমিতি

643

গাজোল: কাজ দেওয়ার নাম করে এক রাজমিস্ত্রিকে ডেকে নিয়ে আটকে রেখে সর্বস্ব লুট এবং মারধরের ঘটনায় দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানালো গাজোলের বরিন্দ রাজমিস্ত্রি কল্যাণ সমিতি। রাজমিস্ত্রিরা শনিবার সকালে গাজোল বিদ্রোহী মোড়ে ৫১২ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। গাজোল থানার পুলিশ এসে দোষীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে অবরোধ উঠে যায়।

সংগঠনের সভাপতি আফাজুদ্দিন শেখ এবং কোষাধ্যক্ষ সুকেশ মন্ডল জানান, গত ১৩ অগাস্ট সংগঠনের সভাপতি তথা রাজমিস্ত্রি তমিজ শেখকে কাজ দেওয়ার নাম করে রানীগঞ্জ এলাকায় ফোন করে ডাকেন কয়েকজন। ফোন পেয়ে তিনি তাদের সঙ্গে দেখা করতে যান। কিন্তু তারপরই তাকে অপহরণ করা হয়। তার কাছ থেকে টাকাপয়সা, মোবাইল ফোনসহ সবকিছু ছিনিয়ে নিয়ে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় পাশের একটি গ্রামে। সেখানেও তাকে মারধর করা হয়। কোনও মতে সেখান থেকে পালিয়ে আসতে সক্ষম হন তিনি। এরপর জানা যায়, ঘটনার সঙ্গে জড়িত রয়েছে বেশকিছু বালি মাফিয়া। গত ১৫ অগাস্ট অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে গাজোল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তামিজ শেখ। কিন্তু ঘটনার এত দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি। তাই অবিলম্বে দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে এ দিন রাস্তায় নেমেছেন সমস্ত রাজমিস্ত্রি এবং সহায়করা।

- Advertisement -

জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকদিন আগে বরিন্দ রাজমিস্ত্রি কল্যাণ সমিতির সভাপতি তামিলসেককে অন্যায় ভাবে ডেকে মারধর করেছে এবং হেনস্থা করেছে বলে অভিযোগ তুলেছেন সংগঠনের কর্মীরা। পুরো ঘটনার বিষয়ে, গাজোল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন সংগঠনের সভাপতি তামিল সেখ। তিনজন অভিযুক্তদের নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে গাজোল থানায়। যদিও গাজোল পুলিশ প্রশাসন এখনও তাদের গ্রেপ্তার করেনি বলে অভিযোগ তুলেছেন সংগঠনের কর্মীরা। তবে, এদিনের বিক্ষোভের খবর পেয়ে ছুটে আসে গাজোল থানার পুলিশ। দীর্ঘক্ষণ অবরোধ চলার পর পুলিশি আশ্বাসে বরিন্দ রাজমিস্ত্রি কল্যাণ সমিতির সংগঠনের কর্মীরা অবরোধ তুলে নেন। জাতীয় সড়ক অবরোধের জেরে দুটি লেনেই যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ঘটনাস্থলে আসে গাজোল থানার পুলিশ। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ এর আশ্বাস দিলে অবরোধ প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।