কলকাতায় বহুতলে বিধ্বংসী আগুন, মৃত কিশোর সহ ২

0
136
- Advertisement -

কলকাতা: বহুতলে বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডে মৃত্যু হল কিশোর সহ ২ জনের। শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটে কলকাতার বৌবাজার এলাকায়। খবর পেয়ে দমকলের বেশ কয়েকটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। জানা গিয়েছে, অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় ৬ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

দমকল সূত্রে খবর, গতকাল রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ ৩১ নম্বর গণেশচন্দ্র অ্যাভিনিউয়ের একটি বহুতলে আগুন লাগে। খবর পেয়ে প্রথমে দমকলের বেশ কয়েকটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছায় দমকলের পদস্থ আধিকারিকরাও পৌঁছান সেখানে। প্রথমে মনে করা হয়েছিল, বিল্ডিংয়ের গ্রাউন্ড ফ্লোরের মিটার ঘর থেকেই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত‌। সেখান থেকেই আগুন দ্রুত উপরের দিকে ছড়িয়ে পড়ে। পরে, প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, অগ্নিকাণ্ডের উত্‍‌পত্তি বাড়িটির দ্বিতীয়তল থেকে। এদিকে বাড়িটির নীচতলায় আগুন লাগায় অনেকেই আটকে পড়েন। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে যান রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। আসেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমও। আগুন যেভাবে বাড়ছিল, তাতে আশপাশের বাড়ি ও সংলগ্ন এলাকায় আগুন ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা ছিল। কিন্তু, দমকল ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর তত্‍পরতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। দমকল কর্মীদের তত্‍‌পরতায় শেষ পর্যন্ত আগুনে আটকে পড়া সকলকে নিরাপদে উদ্ধার করা সম্ভব হয় বলে জানান দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। তিনি জানান, আগুন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। বাড়িটিতে আটকে পড়া প্রত্যেককে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, ঘটনায় বারো বছরের এক কিশোর সহ এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। আগুন ছড়িয়ে পড়ায় ভয়ে চারতলা থেকে ঝাঁপ মারে ওই কিশোর। আশঙ্কাজনক অবস্থায় কলকাতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কিছুক্ষণের মধ্যেই ওই কিশোর মারা যায়। ওই বহুতলের একটি শৌচালয় থেকে এক বৃদ্ধার দেহ উদ্ধার করেন দমকল কর্মীরা। ধোঁয়ায় শ্বাসরুদ্ধ হয়েই বৃদ্ধা মারা গিয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, বহুদিনের পুরোনো এই বহুতলে কোন অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল না। সেই সঙ্গে পুরোনো বৈদ্যুতিক তার চারিদিকে ঝুলন্ত অবস্থায় ছিল। আর তার থেকেই অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করছেন পুলিশ ও দমকল কর্মীরা। জানা গিয়েছে, ওই বহুতলে ৪৫টি পরিবার থাকে। বাড়ি মেরামত ও বৈদ্যুতিক ওয়্যারিংয়ের তার বদলানোর জন্য সেখানকার ভাড়াটিয়ারা বার বার বাড়িওলাকে বললেও তাতে কোনও কাজের কাজ হয়নি। ওই বহুতলে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা না থাকার কারণ হিসেবে এদিন বাড়িওয়ালা জানান যে, পুরোনো বাড়ি। আর সেখানে কি করতে হবে সে বিষয়ে তাঁকে কিছু জানানো হয়নি। আর তার জেরেই তিনি সেই ব্যবস্থা করতে পারেননি। তবে ওই বাড়ির রিজার্ভার থেকে নির্বাপণের সময় জল ব্যবহার করা যায়নি কেন সে বিষয়ে অবশ্য কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি বাড়ির মালিক। ঘটনার তদন্ত চলছে।

- Advertisement -