প্রার্থী বদলের দাবিতে কংগ্রেস অফিসে ব্যাপক ভাঙচুর

72

কালিয়াচক: মোথাবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী বদলের দাবিতে কালিয়াচক কংগ্রেস অফিসে ভাঙচুর চালায় দলের কর্মী-সমর্থকরা। কালিয়াচক-১ নম্বর ব্লক কংগ্রেস সভাপতি মতিউর রহমানের নেতৃত্বে তাঁর অনুগামীরা দলীয় কার্যালয়ের চেয়ার টেবিল ভাঙচুর করে, ফ্লেক্স ও দলীয় পতাকা ছিঁড়ে ফেলে। প্রায় ঘণ্টাখানেক ধরে অফিসে ভাঙচুর চালায় কংগ্রেস কর্মীরা। ঘটনার পর জেলা সভাপতি তথা দক্ষিণ মালদার সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী ডালু বাবুর নামে ঘুষ নিয়ে প্রার্থী করার অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। ডালু বাবুর বিরুদ্ধে বিভিন্ন রকম স্লোগান তুলে বিক্ষোভ দেখায় ক্ষুব্ধ কংগ্রেস কর্মীরা।

ব্লক কংগ্রেস সভাপতি মতিউর রহমান বেশ কিছুদিন ধরেই মোথাবাড়ি বিধানসভার প্রার্থী পদের দাবি করে আসছিলেন। কিন্তু জেলা সভাপতি বা কংগ্রেস নেত্রীরা তাকে প্রার্থী না করে, প্রার্থী করা হয়েছে দুলাল শেখ কে। মতিউর রহমান অনুগামীদের দাবি প্রচুর টাকার বিনিময়ে দুলাল শেখ কে প্রার্থী করেছে জেলা সভাপতি ডালুবাবু। এই অভিযোগ তুলে মঙ্গলবার দুপুরে দলীয় কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে মতিউর অনুগামীরা অফিসে ভাঙচুর চালায়।

- Advertisement -

মতিউর গোষ্ঠীর ওয়াহিদুর রহমান বলেন, ‘জেলা সভাপতি ডালু বাবু প্রচুর টাকা নিয়ে দুলাল শেখ কে মোথাবাড়ির প্রার্থী করেছেন। দুলাল শেখের শিক্ষাগত যোগ্যতা সপ্তম শ্রেণী পর্যন্ত। দুলাল শেখকে প্রার্থী পদ থেকে সরিয়ে মতিউর রহমানকে প্রার্থী করা হোক। দুলাল শেখের নাম যদি বাতিল করা না হয়। তাহলে আমরা লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাব।’

মতিউর রহমান বলেন, ‘আমি আজকে বিশেষ কাজে মালদা শহরে ছিলাম। আমি ফোনে জানতে পারলাম যে অফিসে ভাঙচুর চালানো হয়েছে। আমাকে প্রার্থী না করায় আমাদের দলের কিছু কর্মী সমর্থক কিছুদিন থেকে রাগারাগি করছিলেন। আমাকে বলেছিলেন পার্টি অফিসে ভাঙচুর চালানোর কথা। কিন্তু আমি তাদের বুঝিয়ে রেখেছিলাম।’

ডালু বাবুর পুত্র তথা সুজাপুরের বিধায়ক ইশা খান চৌধুরী বলেন, ‘খুব দুঃখজনক ঘটনা। বেশ কয়েকজন ছেলে অফিসে যেরকম ভাবে ভাঙচুর চালিয়েছে সেটা অবাক করার মত। মতিউর রহমান প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন মোথাবাড়ি বিধানসভার। কিন্তু যে পার্টি অফিসে ভাঙচুর চালিয়েছে সেই পার্টি অফিসটি সুজাপুর বিধানসভার মধ্যে রয়েছে। ডালু বাবু বলেন, ‘আমি শুনেছি আমাদেরই কিছু ছেলে খুব রেগে গিয়ে পার্টি অফিসে ভাঙচুর করেছে। আমরা সবাইকে নিয়ে বসে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।’