মুখ্যমন্ত্রী পদে ফ্রন্টের মুখ সেলিম বা সুজন

259

কলকাতা : এখনও চর্চা চলছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পালটা হিসেবে কাকে সম্ভাব্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা করবে বিজেপি। বাম-কংগ্রেস জোটের সম্ভাব্য পদপ্রার্থীর নামও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। এই আবহেই বামফ্রন্টের সম্ভাব্য মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে ভেসে উঠল মহম্মদ সেলিম এবং সুজন চক্রবর্তীর নাম। আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের খবর, এই মূহূর্তে দুজনের লড়াইয়ে সামান্য হলেও এগিয়ে সেলিম।
এদিকে, বাম-কংগ্রেসের আসন সমঝোতার জট পুরোপুরি কাটল না। এআইসিসির নির্দেশ রয়েছে যে কোনও মূল্যে বামেদের সঙ্গে জোট করেই বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করতে হবে। সেইমতো ১৩০টি আসনের দাবি থেকে কিছুটা সরে এলেও কংগ্রেস এখনও বেশি আসনের দাবি জানিয়েছে। সোমবার বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু ফ্রন্টের নেতাদের নিয়ে কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্যের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছে, গতবার কংগ্রেস যে ৪৪টি আসনে জিতেছিল, এবারও তারা সেখানে প্রার্থী দেবে। অন্যদিকে, বামেরা যে ৩৩টি আসনে জিতেছিল সেখানে তারা প্রার্থী দেবে। বাকি ২১৭টি আসন নিয়ে আসনভিত্তিক আলোচনা হবে। আগামী ২৮ জানুয়ারি ফের বাম ও কংগ্রেস নেতৃত্ব বৈঠকে বসবেন।
প্রথম থেকেই কংগ্রেস ১৩০টি আসনের দাবি জানিয়ে আসছে। কিন্তু বামফ্রন্ট তা ছাড়তে রাজি নয়। সেই কারণে এবার সিদ্ধান্ত হয়েছে প্রতিটি আসন ধরে ধরে আলোচনা করা হবে। এটা স্পষ্ট, জোটের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার কথা সিপিএমেরই কেউ। জোটের সবচেয়ে বড় পার্টি হিসেবে। আসন্ন নির্বাচনে সিপিএমের প্রধান মুখ হিসেবে দুজনের নাম সবার আগে। তাঁরা সমসাময়িক। তেষট্টি বছরের সেলিম অতীতে মন্ত্রী ছিলেন রাজ্যের। পলিটব্যুরো সদস্য। বাংলার পাশাপাশি ইংরেজি, হিন্দি, উর্দুতে সমান দক্ষ। বাংলার বাইরে অন্যান্য নেতাদের সঙ্গে যথেষ্ট পরিচিতি রয়েছে। এইসব কারণে তিনি বিধানসভার বিরোধী নেতা সুজন চক্রবর্তীর তুলনায় এগিয়ে তবে একষট্টি বছরের সুজনের পক্ষে রয়েছে, সম্প্রতি বিধানসভায় বিরোধী নেতা হিসেবে ভালো কাজ। কংগ্রেসের স্থানীয় নেতাদের সঙ্গেও তাঁর ভালো সম্পর্ক।