শুমাখার পদবির চাপ নিয়ে ট্র্যাকে মিক

মানামা (বাহরিন) : ফর্মুলা ওয়ান দুনিয়ায় ফিরছে শুমাখার পদবি।

গাড়ির স্টিয়ারিং ধরে গতির লড়াইয়ে মাততে প্রস্তুত শুমাখার পরিবারের আরেক সদস্য মিক। কিংবদন্তি রেসার মাইকেল শুমাখারের ছেলে মিক অবশ্য শুধু বাবার পরিচয়ে জোরে এতদূর আসেননি। গত বছর ফর্মুলা ২ বিভাগে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হিসেবে সর্বোচ্চ পর্যায়ে উঠে এসেছেন। ফর্মুলা ওয়ানের দল হাসের হয়ে বাহরিন গ্রাঁ প্রিতে অভিষেক হবে বছর বাইশের মিকের। বাবাকে দেখেই গতির দুনিয়ায় পা রেখেছেন। হাতেখড়ি কার্টিং দিয়ে। এরপর ২০১৮ সালে ফর্মুলা ৩-এর ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ খেতাব জেতেন তিনি। গত বছর জেতেন ফর্মুলা ২-এর খেতাব।

- Advertisement -

২০১২ সালে অবসর নিয়েছেন মাইকেল শুমাখার। কিন্তু কেরিয়ারের শুরু থেকেই যে বাবার সঙ্গে অদৃশ্য লড়াইয়ে নামতে হবে, তা জানেন মিক। তাঁর কথায়, আমি জানি বাবা কী কী অর্জন করেছে। আমি তা থেকে অনেক কিছু শিখেছি। বাবা ফর্মুলা ওয়ানের জন্য একটা বেঞ্চমার্ক। ফলে সবারই তুলনা তাঁর সঙ্গে করা হয়। ছেলে হিসেবে রেসার শুমাখারের মূল্যায়ন করে বললেন, বাবা দীর্ঘদিন ধরে একের পর এক সাফল্য পেয়েছে। কিন্তু তা নিয়ে বাবার কোনও অহংকার ছিল না। আমি বাবার এই দিকটার অনুরাগী। আমি নিজের কেরিয়ারে এভাবেই থাকতে চাই।

বিখ্যাত বাবার ছেলে হওয়ার চাপ টের পেয়েছেন প্রাক্তন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন রেসার নিকো রসবার্গ। তিনি বললেন, বাবা তারকা হলে ছেলের চাপ এমনিই বেড়ে যায়। সেখানে মিকের চাপ আরও ১০ গুণ বেশি। কারণ মাইকেল শুমাখারের সময়টা খুব বেশি পুরোনো নয়। আর তাঁর সাফল্যও অন্যদের থেকে অনেকটাই বেশি। তিনি আশা করছেন, মিক এই ধরনের চাপ নিয়ে নিজের লক্ষ্যে স্থির থাকবেন। বরং এই চাপই মিককে আরও ভালো ফল করতে সাহায্য করবে।

হাস দলে মিকের সঙ্গী হতে চলেছেন নিকিতা মাজেপিন। ফর্মুলা ওয়ান দুনিয়ার না হলেও তাঁর বাবা দিমিত্রি মাজেপিন বেশ বিখ্যাত। ধনকুবের দিমিত্রি হাস দলের স্পনসর উরালকালির অন্যতম কর্তা। তবে দলে মিকই প্রধান ড্রাইভার হতে চলেছেন। বাবার ৯১ রেস জেতা ও ৭ বার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার নজির তিনি ভাঙতে পারবেন কি না, তা অবশ্য সময়ই বলবে।