মাইক্রোফিনান্স কোম্পানির ঋণ শোধের চাপ, আত্মঘাতী মহিলা

168

রায়গঞ্জ: ঋণ নিয়ে শোধ না করতে পেরে আত্মঘাতী হলেন এক মহিলা। অভিযোগ, ছেলের ব্যবসার জন্য একটি বেসরকারি মাইক্রোফিন্যান্স কোম্পানি থেকে ৫০ হাজার টাকা ধার নিয়েছিলেন পেশায় সবজি বিক্রেতা মীরা রায় (৫০)। কিন্তু সেই টাকা সময়মত শোধ করতে না পারায় রবিবার ওই মাইক্রোফিনান্স কোম্পানির লোকজন সরাসরি বাড়িতে ঢুকে গৃহপালিত গরু ও ছাগল তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। শেষ পর্যন্ত তাঁরা ওই মহিলাকে দু’দিনের মধ্যে টাকা শোধের জন্য শাসিয়ে ফিরে যায়।

এরপর সোমবার দুপুরে বাড়ির অদূরে তেজপাতা বাগানে গলার ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন ওই গৃহবধূ। দীর্ঘক্ষণ বাড়িতে না থাকায় পরিবারের লোকেরা খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। মৃতার বড় ছেলে দেখে তেজপাতা বাগানে মা গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলছে। সোমবার দুপুরে রায়গঞ্জ থানার বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের কাচিমুহায় এই ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। মহিলার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

- Advertisement -

মৃতার ভাইপো তথা বিজেপির জেলা নেতা জয়ন্ত রায় বলেন, ‘টাকা শোধ করতে না পেরে মাইক্রোফিন্যান্স কোম্পানির মানসিক নির্যাতনের জেরেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন মীরাদেবী।’ বিজেপির উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী বলেন, ‘টাকা শোধ করতে না পারলে নির্যাতন করা বেআইনি কাজ। এব্যাপারে বিচারের জন্য মৃতার পরিবারকে যাবতীয় আইনি সাহায্য করা হবে।’