র‍্যাশনের কুপন না পেয়ে পঞ্চায়েতে তালা ঝোলাল পরিযায়ী শ্রমিকরা

283

সামসী: র‍্যাশনের কুপন না পাওয়ায় ভিন রাজ্য ফেরত শতাধিক পরিযায়ী শ্রমিক সোমবার চাঁচল-১ ব্লকের মহানন্দপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের দপ্তরে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। তালা মারার ফলে ভিতরে আটকে পড়েন প্রধান সহ পঞ্চায়েতের কর্মীরা।

পরিযায়ী শ্রমিকদের অভিযোগ, তালিকায় প্রকৃত শ্রমিকদের নাম নেই, অথচ তালিকায় নাম রয়েছে পঞ্চায়েত সদস্যদের পরিবারের লোকজনদের। এরই প্রতিবাদে অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হন তাঁরা। প্রধানকে এর আগে বহুবার বলেও কোনও সুরাহা হয়নি বলে জানান তাঁরা। প্রধানের সাড়া না মেলায় শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে বিক্ষোভে সামিল হন। প্রায় দুঘন্টার মতো বিক্ষোভের প্রদর্শনের পর প্রধানের আশ্বাসে বিক্ষোভ তুলে নেন তাঁরা।

- Advertisement -

ওই পঞ্চায়েত এলাকার বিষ্টপুরের নূরেশা বিবি সপরিবার রাজস্থান ফেরত হলেও নাম নেই তালিকায়, এমনটাই অভিযোগ তাঁদের। অথচ পঞ্চায়েত সদস‍্যের ছেলে-ভাইপো, ভাসুরসহ অনেক নিকটাত্মীয়ের নাম রয়েছে তালিকায়। এদিকে, ১০০ দিনের কাজের সঙ্গে যুক্ত সুপারভাইজারের নামও তালিকায় রয়েছে বলে খবর।

ধঞ্জনা গ্রামের এক পরিযায়ী শ্রমিক আনসার আলির বলেন, আমরা ভিনরাজ‍্য গিয়ে বিপাকে পড়েছিলাম। কোনও মতে বাড়ি ফিরেছি। রাজ‍্য সরকার ঘোষণা অনুযায়ী ভিনরাজ্য ফেরত পরিযায়ী শ্রমিকরা চাল পাবেন।তবে এক মাস পেরিয়ে গেলেও চালের তালিকায় নাম আসেনি আমার। এনিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি।

কংগ্রেসের পঞ্চায়েত প্রধান গোপাল চৌধুরি বলেন, ধাপে ধাপে তালিকা আসছে পঞ্চায়েতে। সকল পরিযায়ী শ্রমিকই চালের কুপন পাবেন। তিনি জানান, পঞ্চায়েত থেকে তালিকা নির্ধারিত হয় না। বিডিও অফিস থেকে নামের তালিকা সহ কুপন আসে। তাঁরা শুধু বিলি করেন। তবে কারও নাম তালিকায় না থাকলে তিনি সরাসরি বিডিওকে নালিশ করতে পারেন বলে জানান তিনি।

প্রধানের দাবি, শাসকদলের মদতে পরিযায়ী শ্রমিকরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। পঞ্চায়েতের নামে কুৎসা রটানোর জন‍্য শাসকদলের এই প্রয়াস বলে মন্তব্য করেন প্রধান। চাঁচল-১ ব্লকের বিডিও সমীরণ ভট্টাচার্য্য বলেন, কুপন বিলি নিয়ে চাঁচলের পঞ্চায়েতগুলিতে কেন বারে বারে বিক্ষোভ হচ্ছে, তা গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখা হবে।