বর্ষায় পরিযায়ী পাখিদের আস্তানা গোয়ালপোখর থানা

342

গোয়ালপোখর : রায়গঞ্জের কুলিক পাখিরালয় শামুকখোল পাখির সবচেয়ে বড় আস্তানা বলেই পরিচিত। কিন্তু তুলনায় অপরিচিত হলেও গোয়ালপোখরে অন্য বছরের মতো এবারও ওই প্রজাতির কয়েক হাজার পাখি আস্তানা গেড়েছে। কুলিকের পাশাপাশি গোয়ালপোখর থানা চত্বরে ফি বছর ভিড় জমায় কয়েক হাজার ভিনদেশি পরিযায়ী পাখি। এবার গোয়ালপোখরে একমাস আগেই সদলবলে হাজির ভিনদেশি পাখিরা। কম্বোডিযা, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, মায়ানমার এবং দক্ষিণ ভারত থেকে আসা পাখিদের ভিড়ে গমগম করছে কুলিক অভয়ারণ্য। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে গোয়ালপোখর থানা চত্বরে বড় বট গাছগুলিতে ওপেন বিল স্টক, নাইট হেরন, ইগ্রেট ও করমোরেন্ট প্রজাতির পাখিদের দেখা মিলছে। এ ব্যাপারে রাযগঞ্জের ডিএফও সোমনাথ সরকার বলেন, ‘সার্কভুক্ত বিভিন্ন দেশ থেকে হাজার হাজার মাইল পেরিয়ে ফি বছর বিভিন্ন প্রজাতির পাখি এখানে ডিম পাড়তে আসে। তারা জুলাই-ডিসেম্বর পর্যন্ত এখানে থাকে। কিন্তু এবার তারা একমাস আগেই চলে এসেছে। এটা আমাদের কাছে খুবই আশার খবর। কুলিককে কেন্দ্র করেই ওই পাখির দল আসে। কিন্তু খাবারের সন্ধানে এরা কয়েক বছর ধরে গোয়ালপোখরে আস্তানা গাড়ছে। আগে এলাকায় অনেকেই পাখি মারতেন। কিন্তু মানুষ এখন সচেতন। তাঁরা পাখিদের আপন করে নিয়েছেন।’

কুলিক পাখিরালয় জাতীয সড়কের পাশেই। এলাকায় অনেক কারখানা থাকায় পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। এছাড়া ওই এলাকায পাখিদের খাবারের অভাব রয়েছে। তাই পাখিদেক একাংশ বিকল্প আস্তানা হিসাবে গোয়ালপোখর থানাকে বেছে নিয়েছে। গাছগুলি গোয়ালপোখর থানা চত্বরে থাকায় পাখি শিকারিরা হানা দিতে সাহস পায় না। এছাড়া পাখিগুলি এলাকায় থানার পাখি বলে পরিচিত। গোয়ালপোখর থানার ওসি বিশ্বনাথ মিত্র বলেন, ‘পাখিগুলি আমাদের থানার অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকেই থানায় পাখি দেখতে আসেন। পাখিদের যাতে কেউ অত্যাচার না করে সেজন্য থানার প্রতিটি কর্মীর নজর থাকে।’ থানার কর্মীরা জানিয়েছেন, পরিযাযী পাখিদের একটা ঝাঁক আগে জায়গা দেখতে আসে। সেই জাযগা তাদের থাকার উপযুক্ত কিনা, খাবার পাওয়া যাচ্ছে কিনা, সে সব দেখার পর তাদের সংকেত পেলে বাকিরা পৌঁছায়। ওইসব পাখি জুন-জুলাই মাসে এখানে এসে বাসা বাঁধে। তারপর ডিম ফুটে শাবকের জন্ম হয। বর্ষা পেরিয়ে যখন শরৎ আসে, ততদিনে শাবকরা উড়তে শিখে যায। এরপর একটু বড় হলে ডিসেম্বর মাসে প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই আবার যে যার নিজের জায়গায় উড়ে যায়। কয়েক বছর ধরে গোয়ালপোখর থানায় পরিযায়ী পাখিদের দেখতে স্থানীয় মানুষের পাশাপাশি বহিরাগতরাও ভিড় জমাচ্ছেন।

- Advertisement -

তথ্য ও ছবি- তপন বিশ্বাস