পেট্রোপণ্যের মূল্য বৃদ্ধিতে আন্তর্জাতিক বাজারের সাফাই মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানের

83

দূর্গাপুর: বলতে গেলে প্রায় প্রতিদিনই পেট্রোল ও ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধি হচ্ছে। একই পথে হাঁটছে রান্নার গ্যাসও। কার্যত নাভিশ্বাস উঠতে শুরু করেছে আমজনতার। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস থেকে শুরু করে কংগ্রেস সহ দেশের সব বিরোধী রাজনৈতিক দল একযোগে বিজেপিকে আক্রমণ করছে। এমন পরিস্থিতিতে রবিবার ঝটিকা সফরে রাজ্যে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। হলদিয়ায় একটি অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে চারটি প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস করার কথা রয়েছে তাঁর।

শুক্রবার নরেন্দ্র মোদির অনুষ্ঠান সবিস্তারে তুলে ধরতে দূর্গাপুরে কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়ম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান এক সাংবাদিক সম্মেলনে অংশ নেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘দেশের অন্যান্য প্রান্তের রাজ্য গুলিতে গ্যাসের পাইপলাইন আছে। পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে তেমনভাবে নেই। এবার তার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে উদ্যোগ নিয়েছেন। রবিবার তিনি যে চারটি প্রকল্পের উদ্বোধন ও শিলান্যাস করবেন, তার জন্য খরচ হবে ৪৭০০ কোটি টাকা।’ সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি আরও বলেন, ‘পেট্রোল, ডিজেল ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধি হচ্ছে আন্তর্জাতিক বাজারের জন্য। এতে কেন্দ্র সরকারের কিছু করার নেই। আমি নিজে এরজন্য ওপেকের কর্তাদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে রীতিমতো ঝগড়া করেছি। সব মানুষদের দিতে গেলে, এটা হতেই পারে। কেরোসিন তেলে ভর্তুকি তুলে নেওয়ার পক্ষে মন্ত্রীর যুক্তিতেও বিরোধীরা কটাক্ষ করতে ছাড়েননি।’

- Advertisement -

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দাবি, কেরোসিন তেলের বিকল্প হিসেবে বিদ্যুৎ ও রান্নার গ্যাস এসেছে। এরজন্য কেরোসিন তেলের উপর থেকে ভর্তুকি তুলে নেওয়া হয়েছে। দেশের ৮ কোটি মানুষ উজালার গ্যাস পেয়েছেন। তারমধ্যে এই রাজ্য  প্রায় ১০ শতাংশ মানুষ এই প্রকল্পের লাভ পেয়েছেন।