সাংসদ অধীর চৌধুরির বাড়িতে দুষ্কৃতী হামলা 

194

বহরমপুর: বহরমপুরের কংগ্রেস সাংসদ তথা লোকসভার বিরোধী দলনেতা অধীর চৌধুরির বহরমপুরের বাড়িতে শনিবার রাতে দুষ্কৃতী হামলার ঘটনা ঘটল। বিষয়টি সামনে আসতেই এলাকায় রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ইতিমধ্যেই জেলা কংগ্রেস বহরমপুর থানায় ঘটনার লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। যদিও ঘটনার সময় অধীরবাবু তাঁর বহরমপুরের গোড়া বাজারের বাড়িতে ছিলেন না।

মুর্শিদাবাদ জেলা কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত দাস রবিবার এবিষয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেন। তিনি জানিয়েছেন, শনিবার রাত ১১টা ৪০ মিনিট নাগাদ অধীরবাবুর বাড়িতে কয়েকজন দুষ্কৃতী হামলা চালিয়েছে।বাড়িতে সেই সময় অধীরবাবুর একজন দেহরক্ষী এবং বাড়ির এক পরিচারক ছিলেন। তাঁরা শুনতে পান, কয়েকজন বাড়ির বাইরে দাড়িয়ে সাংসদের উদ্দেশ্যে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছেন। তার কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁরা বেশ কিছু ভারী জিনিস বাড়ির উদ্দেশ্যে ছুড়তে শুরু করে।

- Advertisement -

তিনি আরও জানান, এর ফলে বাড়ির বেশ কয়েকটি জানালার কাঁচ ভেঙে যায়। পরিস্থিতি বুঝে তাঁর দেহরক্ষী দুষ্কৃতীদের তাড়া করলে তাঁরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। জযন্তবাবু যদিও কোনও রাজনৈতিক দলের নাম নেননি। তবে তিনি কৌশলে তৃণমূল সরকার এবং তাদের পরিচালিত প্রসাশনকেই দায়ী করেছেন। তিনি এদিন বলেন, রাজনীতি রাজনীতির জায়গায়। কোনও সাংসদের বাড়িতে এইভাবে নিজেদের লোক দিয়ে হামলা করানোর কোনও মানে হয় না।

তাঁর দাবি, এই সমস্ত ঘটনা ঘটিয়ে কোনও ভাবেই কংগ্রেস দলের সমর্থক এবং সাংসদের মনোবল ভাঙা সম্ভব নয়। দুষ্কৃতীদের দিয়ে হামলা করিয়ে তারা নোংরা রাজনীতির পরিচয় দিচ্ছে। প্রশাসনের উপরে আস্থা রেখে ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি জানিয়েছি। সেইসঙ্গে ঘটনায় জড়িত দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তারের দাবিও জানানো হয়েছে প্রশাসনের কাছে।

বহরমপুর থানার আইসি জানিয়েছেন, সাংসদ অধীররঞ্জন চৌধুরির বাড়িতে হামলার ঘটনার বিষয়টি তারা জানতে পেরেছেন। তাঁর বাড়ির সিসিটিভির ফুটেজ দেখা হচ্ছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। দুষ্কৃতীদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। এই বিষয়ে অধীর চৌধুরির সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়। তবে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এই বিষয়ে তৃণমূলের কোনও নেতারা মন্তব্য করতে চাননি।