খানাখন্দে ভরা বীরপাড়া টার্মিনাসে ঢোকে না বাস, যান না যাত্রীরাও

381

মোস্তাক মোরশেদ হোসেন, বীরপাড়া: ‘আনলক’ পর্ব শুরু হওয়ার পর থেকে রাস্তায় কিছু বাস রাস্তায় চলতে শুরু করলেও আলিপুরদুয়ার জেলার বীরপাড়ার বীর বীরসা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাসে কোনও বাস ঢোকে না। ফলে বাস ধরতে ওই টার্মিনাসে যান না কোনও যাত্রীই। বাস মালিকদের সংগঠন সূত্রের খবর, ২৩ মার্চ লকডাউন ঘোষিত হওয়ার পর থেকে পরিত্যক্ত হওয়ার মত অবস্থা হয়ে দাঁড়িয়েছে বাস টার্মিনাসটির।

কেবলমাত্র বীরপাড়ার কয়েকজন বাস মালিক গন্তব্য থেকে ফেরার পর তাঁদের বাসগুলি ওই টার্মিনাসে রেখে দেন। এছাড়া আর কোনও কাজেই লাগছে না বাস টার্মিনাসটি। বর্তমানে বীরপাড়া হয়ে জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, জয়গাঁ, শিলিগুড়ি রুটে চলাচল করা বাসগুলি বীরপাড়া বাস টার্মিনাসে ঢোকে না। বীরপাড়া চৌপথি হয়ে বেরিয়ে যায় সেগুলি। বাস টার্মিনাসটি এখন ট্রাক মেরামতের জায়গা হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

- Advertisement -

বাস মালিকদের সংগঠনের অভিযোগ, টার্মিনাসের পরিকাঠামোর বেহাল দশার জন্যই সেখানে বাস ঢোকাতে রাজী হচ্ছেন না চালকরা। বীরপাড়া ডুয়ার্স মিনিবাস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোতি খান বলেন, বেহাল দশার জন্যই ব্যবহার করা যাচ্ছে না টার্মিনাসটি। প্রসঙ্গত, গোটা বাস টার্মিনাসটিই ভরে গিয়েছে বড় বড় গর্তে। টানা বৃষ্টিতে গর্তগুলি দিনের পর দিন ধরে জলে ভর্তি হয়ে রয়েছে। টার্মিনাসে ঢোকা ও বের হওয়ার একমাত্র রাস্তাটি বরাবরই বালি-বজরি দিয়ে তৈরি করা ছিল। বর্ষায় বালি-বজরি ধুয়ে গিয়েছে। বড় বড় গর্তে ভরে গিয়েছে রাস্তাটিও।

খানাখন্দে ভরা বীরপাড়া টার্মিনাসে ঢোকে না বাস, যান না যাত্রীরাও| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

বাস মালিকদের সংগঠনের সভাপতি মোতি খান বলেন, এর আগে বাস টার্মিনাসের পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য বহুবার প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছিলাম। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। এদিকে করোনা সংক্রমণের জেরে লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে আর টার্মিনাসের উন্নতির জন্য তদবির করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে টার্মিনাসের অবস্থা এতই খারাপ যে তাতে যাত্রী ওঠানামার জন্য বাস ঢোকানো সম্ভব নয়।

প্রসঙ্গত, আগে বীরপাড়ার কেন্দ্রস্থলে বাজারের কাছে ছিল বীরপাড়া বাস টার্মিনাস। কিন্তু সেখানে জায়গা ছিল অত্যন্ত কম। ছিল না শৌচাগার, জলের ব্যবস্থা। এছাড়া, বীরপাড়ার ভেতরে বাস ঢোকায় যানজটও হচ্ছিল। ২০১৬ সালের মাঝামাঝি সময়ে বীরপাড়া চৌপথির কাছে উদ্বোধন করা হয় নয়া বাস টার্মিনাসটি। কিন্তু নয়া বাস টার্মিনাসটিও প্রথম থেকেই পরিকাঠামোগত সমস্যায় ভুগছে বলে অভিযোগ। বর্তমানে সেখানে যাত্রী ওঠানামার জন্য কোনও বাস ঢোকে না। কোনও যাত্রীও যান না সেখানে। ফলে দিবালোকেই গা ছমছমে অবস্থা বিরাজ করে সেখানে।

মাদারিহাট-বীরপাড়া পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ রশিদুল আলম বলেন, বীরপাড়া বাস টার্মিনাসের হাল ফেরাতে আমরা পূর্ত দপ্তরের দ্বারস্থ হয়েছিলাম। পূর্ত দপ্তর একটি পরিকল্পনা অনুমোদন করে পরিবহন দফতরে পাঠায়। কিন্তু পরিবহন দফতর এখনও পর্যন্ত টাকাকড়ি বরাদ্দ করেনি। আবার পঞ্চায়েত সমিতির তহবিলেও প্রয়োজনীয় টাকা নেই। তবে ফিফটিন এসএফসি ফান্ড থেকে কিছু টাকা পাওয়ার কথা আছে। ওই টাকা পেলে তা থেকেই কিছু টাকা ব্যয় করে বাস টার্মিনাসটি ব্যবহারযোগ্য করতে পদক্ষেপ করা হবে।