ক্রেতার অভাবে বন্ধ করা হল মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের মিষ্টি হাব

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: বহু প্রচেষ্টা চালিয়েও মন কাড়া যায়নি ক্রেতা মহলের। তাই শেষ পর্যন্ত বন্ধই হয়ে গেল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের প্রকল্প বর্ধমানের মিষ্টি হাব। জলে গেল কোটি কোটি টাকা। মান রাখতে প্রশাসন এখন চাইছে মিষ্টি হাবের গোটা বিল্ডিং সহ জায়গা অনাময় সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালকে হস্তান্তর করে দিয়ে ফের শক্তিগড়ে নতুন করে মিষ্টি হাব গড়ে তুলতে।

বর্ধমানের ২ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে বামচাঁদাইপুরে গড়ে তোলা হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের মিষ্টি হাব। ২০১৭ সালের ৭ এপ্রিল আসানসোলে বর্ধমান জেলা ভাগের মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মিষ্টি হাবের উদ্বোধন করেন। তখন বলা হয়েছিল পূর্ব বর্ধমান জেলার প্রসিদ্ধ মিষ্টি ছাড়াও রাজ্যের অন্যান্য জেলার প্রসিদ্ধ মিষ্টি মিলবে বর্ধমানের মিষ্টি হাবে।

- Advertisement -

কিন্তু উদ্বোধনের কিছুদিন পরেই বর্ধমানের বামচাঁদাইপুরের মিষ্টিহাব কার্যত মুখ থুবড়ে পড়ে। এরপর থেকে মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও জেলা প্রশাসনের কর্তারা মিষ্টি হাব সচল করার জন্য নানাভাবে প্রচেষ্টা চালানো শুরু করেন। মিষ্টি হাবের সামনে যাতে বিভিন্ন রুটের সরকারি বাস দাঁড়ায় তার ব্যবস্থা করার জন্য জেলা প্রশাসনের কর্তারা রাজ্যের পরিবহন দফতরে চিঠি চাপাটিও করেছিলেন। বছরে পর বছর প্রশাসনিক স্তরে বৈঠক-আলোচনা অনেক কিছুই হয়েছে।

মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ পরামর্শ দিয়েছিলেন, মিষ্টি হাবে মিষ্টি ছাড়াও পিৎজা সহ অন্যান্য খাবারের স্টল রাখার। মিষ্টি হাবে উৎপাদিত মিষ্টির গুণগত মান পরীক্ষার ব্যবস্থা রাখার কথাও বলা হয়। গত বছর জানুয়ারি মাসে প্রশাসনের তরফে বর্ধমানের মিষ্টি হাবে সপ্তাহখানেক ধরে মিষ্টি উৎসবেরও আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু এত কিছুর পরেও ক্রেতা মহলে আকর্ষণ তৈরি না হওয়া সব চেষ্টাই বিফলে যায়। মিষ্টি হাবকে আর চাঙ্গা করা যায়নি।

জেলাশাসক বিজয় ভারতী বলেন, বর্ধমানের বামচাঁদাইপুরের মিষ্টিহাব সচল করার জন্য নানা ভাবে চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু কিছু কাজ হল না। তাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে শক্তিগড়ে ২ নম্বর জাতীয় সড়কের দুপাশে যেখানে সারি দিয়ে ল্যাংচার দোকান রয়েছে সেখানের জায়গায় নতুন করে মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের মিষ্টিহাব গড়ে তোলা হবে।

কোটি কোটি টাকা খরচ করে বামচাঁদাইপুরের তৈরি হওয়া মিষ্টি হাবটির তাহলে কি হবে? এই প্রশ্নের উত্তরে জেলাশাসক জানান, মিষ্টি হাবের কাছেই রয়েছে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সুপার স্পেশালিটি বিভাগ অনাময় হাসপাতাল। গোটা বিল্ডিং সহ মিষ্টি হাবের জায়গা অনাময় হাসপাতালকে দিয়ে দেওয়া হবে।