নেতাজির জন্মবার্ষিকী পালনে রাজ্যে মোদি, পাশে থাকলেন মুখ্যমন্ত্রীও

259

কলকাতা: নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মদিবস উপলক্ষ্যে শনিবার কলকাতায় এলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মজয়ন্তীকে ঘিরে একাধিক কর্মসূচিতে অংশ নেন তিনি।

নেতাজির জন্মবার্ষিকী পালনে রাজ্যে মোদি, পাশে থাকলেন মুখ্যমন্ত্রীও| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

- Advertisement -

নির্ধারিত সময়ের বেশ কিছুটা আগেই ২টা ৪৫ মিনিটে সেনা বাহিনীর বিশেষ বিমানে দমদম বিমানবন্দরে এসে নামলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।  সেখান থেকেই সেনাবাহিনীর বিশেষ চপারে করে তিনি ৩টা ১৫ মিনিটে গিয়ে পৌঁছান রেসকোর্সে। সেখানে তাঁকে স্বাগত জানানোর জন্য আগে থেকেই হাজির ছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর ও রাজ্যের মন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার বর্তমান প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম।

৩টা ২৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীর গাড়ির কনভয় পাড়ি দেয় দক্ষিণ কলকাতার ভবানীপুরের এলগিন রোডে নেতাজির বাসভবনে।  আগে থেকেই সেখানে হাজির ছিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক তথা এরাজ্যের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়, সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত ও দলীয় নেতা চন্দ্রনাথ বসু। সেখান তাঁরা প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানানোর পরেই তিনি সোজা গিয়ে হাজির হন নেতাজি সংগ্রহশালায়। পাশাপাশি তিনি ঘুরে দেখেন নেতাজির বাসভবনও।

নেতাজির জন্মবার্ষিকী পালনে রাজ্যে মোদি, পাশে থাকলেন মুখ্যমন্ত্রীও| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

নেতাজির বাসভবনে পৌঁছানোর পরেই দলীয় নেতারা তাঁকে স্বাগত জানালেও কৈলাস বিজয়বর্গীয়, স্বপন দাশগুপ্ত ও চন্দ্রনাথ বসু নেতাজির বাসভবনের বাইরে অপেক্ষায় ছিলেন। প্রধানমন্ত্রীকে নেতাজির বাসভবন ও সংগ্রহশালাটি ঘুরিয়ে দেখান সুগত বসু ও সুমন্ত বসু।

নেতাজির বাসভবনে যাওয়ার কোনও কর্মসূচি আগে ছিল না প্রধানমন্ত্রীর। পরবর্তী পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী দপ্তর থেকে নেতাজির পরিবারকে সে কথা জানানোর পরেই তাঁরা তাতে রাজি হন। তবে তাঁরা পরিষ্কার জানিয়ে দেন যে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিনে কোনও রাজনৈতিক নেতা হিসেবে নয়, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদি সেখানে আসতে পারেন। তবে তাঁর সঙ্গে কোনও রাজনৈতিক নেতা সঙ্গী হতে পারবেন না। আর এর জেরেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শুধুমাত্র রাজ্যপাল নেতাজির বাসভবনে ঢোকেন , বাকি সকলে  বাইরে অপেক্ষায় ছিলেন।প্রধানমন্ত্রীর এই প্রথম নেতাজির বাসভবনে আসা বলে জানা গিয়েছে।

প্রায় মিনিট পনেরো মোদি নেতাজির বাসভবনে থাকার পর পায়ে হেঁটেই সেখান থেকে এলগিন রোডে এগিয়ে আসেন তাঁর গাড়ির কাছে।  সেই সঙ্গে তিনি সেখানে উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে হাত নাড়েন।

এরপরেই সেখানে থেকে প্রধানমন্ত্রীর কনভয় রওনা দেয় জাতীয় গ্রন্থাগারের উদ্দেশ্যে।

নেতাজির জন্মবার্ষিকী পালনে রাজ্যে মোদি, পাশে থাকলেন মুখ্যমন্ত্রীও| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

জাতীয় গ্রন্থাগারের পরে বিকেল ৪.৩০ টা নাগাদ রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে সঙ্গে নিয়ে মোদি পৌঁছে যান ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে। সেখানে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। মোদিকে উত্তরীয় পরান মমতা। পাশাপাশি নির্ভীক সুভাষ নামে একটি গ্যালারির উদ্বোধন করেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তিনি গ্যালারিটি ঘুরে দেখেন।