কেদারনাথ, ১৯ মে : কেদারনাথের গুহায় বসে ধ্যান করেছেন। তবে, নিজের জন্য ঈশ্বরের কাছে কিছুই চাননি। এমনকী, নির্বাচনে জয় পর্যন্ত চাননি। তেমন স্বভাবই নয় তাঁর। গুহা থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের কাছে অন্তত এমনই জানিয়েছেন দেশের বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী। আবার তিনি দিল্লির মসনদে বসবেন কিনা তা ২৩ তারিখ জনতা রায় দেবে। তবে, ১১হাজার ৭৫৫ ফুট উচ্চতায় কেদারনাথ গুহায় ১৭ ঘণ্টা ধ্যানের পর মোদি জানিয়েছেন, তিনি শুধু দেশের মানুষের জন্য প্রার্থনা করেছেন আর ঈশ্বরের আশীর্বাদ চেয়েছেন।

নির্বাচন কমিশনকে অকুণ্ঠ ধন্যবাদ জানিয়েছেন বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী। নির্বাচনি আচরণবিধি জারি থাকা সত্ত্বেও তাঁকে কেদারনাথ ও বদ্রীনাথ যাওয়ার অনুমতি দিয়ে কমিশন। তবে, কোনোভাবে ভোটের প্রচার যেন না হয়, সে ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছিল কমিশন। গুহায় ধ্যানমগ্ন মোদি ও তাঁর কেদারনাথ যাত্রার ছবি সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দিয়েছেন তাঁর অনুগামীরা। এটাও কি এক ধরনের প্রচার নয়, এমন প্রশ্ন তুলেছেন বিরোধীরা। কেউ কেউ কটাক্ষের সুর চড়িয়ে বলছেন, ২৩ তারিখের পর একেবারে লোটাকম্বল নিয়েই যেতে পারতেন।

ছবি-কেদারনাথের গুহায় ধ্যানে বসেছেন মোদি। সংগৃহীত চিত্র