গতি, সুইংয়ে বাজিমাতের হুঁশিয়ারি সামির

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : বাকি আর মাত্র কয়ে ঘণ্টা। তারপরই মুম্বই থেকে টিম ইন্ডিয়া মিশন ইংল্যান্ডে রওনা হয়ে যাবে।

১৮ জুন থেকে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়ানশিপ ফাইনাল। মাঝের সময়ে কিছুটা বিশ্রাম। আর তারপরই ৪ অগাস্ট থেকে ট্রেন্টব্রিজে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাঁচ টেস্টের দীর্ঘ সিরিজ। সবমিলিয়ে মোট ছয় টেস্টের মিশন ইংল্যান্ডে বিরাট কোহলির ভারত কেমন পারফর্ম করে, তা নিয়ে প্রবল আগ্রহ ক্রিকেটমহলে।

- Advertisement -

বিলেত উড়ে যাওয়ার আগে আজ নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডকে হুঁশিয়ারি দিয়ে রাখলেন কোহলির দলের অন্যতম সেরা পেসার মহম্মদ সামি। অতীতে ভারতীয় ক্রিকেটে এক-দুইজন জোরে বোলার থাকতেন। বর্তমানে ছবিটা বদলেছে। এখন টিম ইন্ডিয়ায় অন্তত ৪-৫ জন এমন পেসার রয়েছেন, যাঁরা গতি ও সুইংয়ের মাধ্যমে বিপক্ষকে চাপে ফেলতে জানে। ১৪৫ কিলোমিটার গতিতে ধারাবাহিকভাবে বল করতে জানেন ভারতীয় পেসাররা। সঙ্গে দুনিয়ার সব প্রান্তে বল সুইং করানোর দক্ষতাও রয়েছে তাঁদের। এভাবেই আজ কেন উইলিয়ামসন, জো রুটদের সতর্ক করেছেন সামি।

তিনি একা নন। জসপ্রীত বুমরাহ, ইশান্ত শর্মা, মহম্মদ সিরাজ, শার্দূল ঠাকুর, উমেশ যাদবদের সবারই এমন দক্ষতা রয়েছে। ভারতীয় পেসারদের স্কিল ও দক্ষতার জন্য বিদেশি দল তাদের ঘরের মাঠে পিচ তৈরির আগে এখন ঘাস রাখার ব্যাপারে সহজে সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। এভাবেই আজ মিশন ইংল্যান্ড নিয়ে মুখ খুলেছেন সামি। তাঁর কথায়, ভারতীয় পেস আক্রমণের সবচেয়ে পজিটিভ দিক হল, সবাই ধারাবাহিকভাবে ১৪০-১৪৫ কিলোমিটার গতিতে বল করতে পারে। সঙ্গে থাকে বিষাক্ত সুইং। অতীতে ভারতীয় ক্রিকেটে এক বা দুইজন পেসার থাকত। তাঁদের বলের গতিও ১৪০ কিলোমিটার ছিল না। কিন্তু এখন আমাদের মোকাবিলা করা সহজ নয়। দুনিয়ার সব প্রান্তে সবরকম পিচেই বল করতে জানি আমরা।

অতীতে কপিলদেব, জাভাগল শ্রীনাথ, জাহির খানদের মতো পেসারদের কথা মাথায় রয়েছে সামির। তাঁদের প্রতি পূর্ণ সম্মান দেখিয়েও বর্তমান ভারতীয় পেস আক্রমণকে দেশের সর্বকালের সেরা আখ্যা দিয়েছেন তিনি। সামির মতে, কাউকে খাটো বা অসম্মান করছি না। কিন্তু ভারতীয় পেস আক্রমণের অতীত ছবিটা ছিল আলাদা। এক বা দুইজন পেসার থাকত দলে। স্পিনারদের উপর বেশি নির্ভরতা ছিল। কিন্তু এখন পেসাররাই দলের বোলিং আক্রমণের হৃদয়ন্ত্র। তাই বিপক্ষ দল তাদের মাঠে ভারতের বিরুদ্ধে উইকেটে ঘাস রাখতে ভয় পায় এখন।

টিম ইন্ডিয়ার অন্যতম সেরা পেসার হিসেবে সামির জন্যও আসন্ন মিশন ইংল্যান্ড রীতিমতো চ্যালেঞ্জিং। কারণ, উইলিয়ামসন, রুটদের মতো বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যানদের বিরুদ্ধে নামতে হবে তাঁকে। মুম্বইয়ের হোটেলে কোয়ারান্টিনের মধ্যেই তিনি সেই চ্যালেঞ্জ নিয়ে ফেলেছেন। সামির কথায় আজ সেই আত্মবিশ্বাস পাওয়া গিয়েছে। তিনি বলেন, নিজেদের প্রয়োগ করে দুনিয়ার যেকোনও ব্যাটিংয়ে বিরুদ্ধে চাপ তৈরির ক্ষমতা রয়েছে আমাদের। ঘরের মাঠে বিপক্ষ দল আমাদের নিয়ে ভাবে এখন।