জিতে লিগ অভিযান শুরু মহমেডানের

কল্যাণী : খাতায় কলমে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অন্যতম দাবিদার। বুধবার কল্যাণী স্টেডিয়ামে কলকাতা লিগের শুরুটা চ্যাম্পিয়নের মতোই করল মহমেডান স্পোর্টিং। সাদার্ন সমিতিকে হারাল ৩-০ গোলে।

লিগকে মাথায় রেখে দীর্ঘদিন ধরে একসঙ্গে অনুশীলন করছেন মহমেডানের নিকোলা স্টোজানোভিচ, শেখ ফৈয়াজ, আজহারউদ্দিন মল্লিকরা। সেখানে সাদার্নের প্রস্তুতিতে বিস্তর ফাঁক। অধিনায়ক হিসেবে নাম ঘোষণা হলেও অনুশীলনে আসেন না তারকা স্ট্রাইকার অসীম বিশ্বাস। রক্ষণের স্তম্ভ ভিক্টর কামহুকা একদিন আগে শহরে এসে আজ ম্যাচ খেলতে নেমে পরেছেন। মাঠে বারবার নজরে এল এই তফাৎ। নিজেদের মধ্যে পাস খেলে সাদার্নের রক্ষণকে ব্যতিব্যস্ত করল মহমেডান। উল্টোদিকে, নিজেদের ঘর বাঁচিয়ে আক্রমণে উঠলেও কিলং-প্রিন্সদের দৌড় প্রতিপক্ষের বক্সের সামনেই শেষ হয়ে গেল প্রতিবার।

- Advertisement -

এদিন মহমেডানকে খেলালেন নিকোলা। ক্রিকেট হলে বলা যেত অধিনায়কোচিত ইনিংস। গোল করলেন, করালেন। কর্নার তুললেন, নেমে এসে প্রতিপক্ষের সেটপিস হেড দিয়ে বিপদসীমা পার করালেন। ১৫ মিনিট নাগাদ বল পেলেন সাদার্নের গোলের মুখে, বড় বক্সের বাঁ প্রান্তে। সাদার্ন গোলরক্ষক অর্ণব দাসশর্মা বোঝার আগেই বাঁ পায়ে শটে বল জড়িয়ে গেল জালে। পিস্টনের মতো ওঠানাম করলেন। ঠিকানা লেখা পাস বাড়ালেন ফৈয়াজ, ফয়সল আলি, আজহারদের জন্য। ৮৩ মিনিটে নিকোলার থ্রু পাস পেয়ে একক দক্ষতায় দর্শনীয় গোল আজহারের। তার আগে ৪০ মিনিটে ২-০ করেন ফৈয়াজ।

এদিন সেন্ট্রাল ডিফেন্সে অরিজিৎ সিং-ওয়েন ভাজ জুটির ওপর ভরসা রেখেছিলেন মহমেডান কোচ আন্দ্রে চেরনিশভ। তাঁদের পারফরমেন্সে ঢেকে গেল সিরিয়ান ডিফেন্ডার শাহির শাহিনের অভাব। বিশেষত অরিজিতের পায়ে আটকে গেল সাদার্নের অধিকাংশ আক্রমণ। এদিন প্রত্যাশিতভাবেই ম্যাচের সেরা হলেন নিকোলা।