আইনের সঙ্গে পূর্ত দপ্তরের দায়িত্ব পেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলেন মলয় ঘটক

101

আসানসোল, ১০ মেঃ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রীসভায় তৃতীয়বারের জন্য পূর্ণমন্ত্রী হলেন পশ্চিম বর্ধমান জেলা থেকে একমাত্র আসানসোল উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক মলয় ঘটক। রবিবার যখন তাঁর নাম ঘোষণা করা হয়, তখন থেকেই আসানসোল শিল্পাঞ্চলে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা ও কর্মীদের উচ্ছ্বাস শুরু হয়ে যায়। প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে মলয় ঘটক জানিয়েছিলেন, দিদি আমার উপর আবার যে বিশ্বাস ও আস্থা রেখেছেন সেজন্য আমি কৃতজ্ঞ। আমাকে যে দায়িত্ব দেওয়া হবে, তা আমি যথাযথভাবে পালন করার চেষ্টা করব। মানুষের পাশে কিভাবে সারাদিন থাকতে হয়, এটা দিদির কাছ থেকেই প্রথম দিন থেকে শিখেছি।

সোমবার সকালে প্রথমে অন্য মন্ত্রীদের সঙ্গে রাজভবনে গিয়ে শপথ গ্রহণ করেন মলয় ঘটক। এবার তাঁকে পুরোনো দপ্তর আইনের পাশাপাশি, দেওয়া হয়েছে পূর্ত দপ্তরের দায়িত্ব। একসঙ্গে দু’টি দপ্তরের দায়িত্ব পাওয়ায়, এদিন সকাল থেকে উৎসবে মেতে ওঠেন আসানসোলের তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী ও সমর্থকেরা। আসানসোলের বিএনআর পার্টি অফিসে আবীর খেলার পাশাপাশি, মিষ্টি খাওয়ানো হয়। আসানসোলের জিটি রোডের হটন রোড মোড়ে শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি নেতা রাজু আলুওয়ালিয়া কর্মীদের নিয়ে আনন্দে মেতে উঠেন। তৃণমূল কংগ্রেসের জন্মলগ্ন থেকে আসানসোল দূর্গাপুর শিল্পাঞ্চলে মলয় ঘটক প্রথম ব্যক্তি, যিনি দলের দায়িত্বে ছিলেন। বর্তমানে তিনি দলের জেলা চেয়ারম্যানও।

- Advertisement -

২০১১ থেকে ২০২১ পরপর ৩ বার তিনি আসানসোল উত্তর বিধানসভা থেকে ভোটে জয়ী হলেন। ৩ বারই তিনি মন্ত্রীও হয়েছেন। ২০১১ সালে তৃণমূল কংগ্রেস এ রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর আসানসোল ও দূর্গাপুরকে নিয়ে পৃথক জেলা পশ্চিম বর্ধমান গঠন হয়েছে। তৈরি হয়েছে নতুন পুলিশ কমিশনারেট। একইসঙ্গে আসানসোল মহকুমা হাসপাতাল, জেলা হাসপাতালে পরিণত হয়েছে। তৈরী হয়েছে সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালও। আসানসোলের ইএসআই হাসপাতালও আধুনিক হয়েছে। জেলা ও ইএসআই হাসপাতালে বেড়েছে পরিকাঠামো। আসানসোলে তৈরি হয়েছে কাজি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়। আইন মন্ত্রী হিসেবে মলয় ঘটক আসানসোলে ফাস্টট্রাক কোর্ট ও সিবিআই কোর্ট করেছেন। শ্রমদপ্তরের গুরুত্বপূর্ণ বেশকিছু অফিসও তৈরি হয়েছে আসানসোলে। কনজিউমার কোর্টের একটা অংশও আসানসোলে হয়েছে। এবার মন্ত্রী হওয়ার পরে আসানসোল ও জেলার মানুষ বলছেন, তাঁর হাত ধরেই আসানসোল দূর্গাপুর শিল্পাঞ্চলে আগামীদিনে আরও গুরুত্বপূর্ণ কাজ হবে।