লকডাউনে জঙ্গলে ফিরছে সেবকের বাঁদররা

সানি সরকার, শিলিগুড়ি : খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন ঘটিয়েছিল মানুষ। তাতে বদল আনল করোনা লকডাউন। তাই সেবকের বাঁদরের দল নতুন করে খাবার খুঁজতে হানা দিচ্ছে লাগোয়া বনাঞ্চলে। শুধু তাই নয়, বনের খাবার খেয়ে তারা দিব্যি সুস্থ আছে। যেহেতু হাত পেতে খাবার নেওয়াটা সেবকের বাঁদরদের ক্ষেত্রে অভ্যাসে পরিণত হয়ে দাঁড়িয়েছিল, তাই এই ঘটনাকে অনেকের কাছে অস্বাভাবিক ঠেকলেও, স্বাভাবিক হিসেবেই দেখছেন প্রাণিবিদ্যা বিশেষজ্ঞরা। ডব্লিউবিসিএডিসি-র প্রাণীসম্পদ উন্নয়ন দপ্তরের প্রধান তথা বিশিষ্ট ভেটেরিনারি সার্জন স্বরূপ চট্টোপাধ্যায় বলেন, সেবকের বাঁদরগুলো রেশাস প্রজাতির পেরি ডোমেস্টিক। ফলে মানুষের কাছে হাত পেতে খাবার সংগ্রহ করতে তারা যেমন পারে, তেমনই প্রয়োজনে বনাঞ্চলেও ঢুকতে পারে। তবে দিনের পর দিন লোকালয়ে মধ্যে থাকায় গভীর জঙ্গলে খাবারের খোঁজে সেবকের বাঁদরের না ঢোকার সম্ভাবনা বেশি।

সেবকের পথের দুই ধারে শয়েশয়ে বাঁদরের দেখা মেলে। কিন্তু এখন লকডাউনে হাতেগোনা এক-দুটো বাঁদরের দেখা মিলছে। এমন ছবি অনেকের কাছেই অস্বাভাবিক ঠেকেছে। খাবার সংগ্রহ করার অভ্যাস জন্মগত না হওয়ায়, সেবকের বাঁদরের দল গেল কোথায়, অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। অনেক পরিবেশপ্রেমী আবার খাবার নিয়ে সেবকে গিয়েছেন গত কয়েকদিন। কেউ কেউ বাঁদরের দেখা পেয়েছেন। কাউকে আবার খাবার ফেলে দিয়ে বা ফিরিয়ে আনতে হয়েছে। সেবকের বাঁদরের হারিয়ে যাওয়া নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশও করেছেন অনেকে। তবে বাঁদরের এই অনুপস্থিতিকে স্বাভাবিক হিসেবেই দেখছেন প্রাণীবিদ্যা বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের বক্তব্য, বন্যপ্রাণীদের জেনেটিক পরিবর্তন সহজে হয় না। ফলে না খেতে পেয়ে সেবকের বাঁদরদের মৃত্যু হয়েছে ভাবাটা ঠিক নয়। খাবারের খোঁজে বাঁদরের দল সাময়িক ভাবে জঙ্গলে ফিরে গিয়েছে।

- Advertisement -

উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের জুলজি বিভাগের অধ্যাপক সৌমেন ভট্টাচার্য বলেন, বুদ্ধির দিক দিয়ে মানুষের কাছাকাছি রয়েছে বাঁদর। অত্যন্ত বুদ্ধিমান হওয়ায় পরিস্থিতির সঙ্গে সহজেই নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে তারা। তাই লকডাউনে খাবারের খোঁজে সেবকের বাঁদর দলের বনে ফিরে যাওয়াটা স্বাভাবিক ঘটনা। কেননা, বন্যপ্রাণীদের জিনগত পরিবর্তন সহজে ঘটে না। বলা যায়, পরিস্থিতিতে ব্যবহারিক পরিবর্তন ঘটেছে। একই মত পোষণ করে কোচবিহারের সাতগ্রাম কুর্শামারি হাইস্কুলের জুলজির শিক্ষিকা মালবিকা মজুমদার বলেন, বন্যপ্রাণীরা পরিস্থিতির সঙ্গে সহজেই খাপ খাওয়াতে পারে। বড় ধরনের প্রাকৃতিক বিপর্যয় না ঘটলে সেবকের বাঁদররাও বহালতবিয়তে থাকবে। খাদ্যসংকটের জন্য হাতি যেমন লোকালয়ে চলে আসে, তেমনভাবে বর্তমান পরিস্থিতিতে খাবারের খোঁজে বনাঞ্চলে ঢুকেছে সেবকের বাঁদর।