আয় বাড়াতে আরও পণ্যবাহী ট্রেনে সায় উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের

260

কোচবিহার : বেশি করে পণ্যবাহী ট্রেন চালিয়ে ক্ষতি কমাতে উদ্যোগী হয়েছে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেল। এর জন্য তারা বেশ কিছু পদক্ষেপও করেছে। করোনার ফলে যাত্রীবাহী ট্রেন না চলায় রেলের কোটি, কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে। সেই ক্ষতি কিছুটা কমাতে অতিরিক্ত মালগাড়ি চালানো হচ্ছে বলে রেল জানিয়েছে।

উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক শুভানন চন্দ শুক্রবার জানিয়েছেন, প্যাসেঞ্জার ট্রেন থেকে লকডাউনের আগে গড়ে প্রতিদিন তাঁদের প্রায় দেড় কোটি টাকা আয় হত। সেটা বর্তমানে প্রায় শূন্য বলে তিনি জানান। তাই মালগাড়ি বেশি করে এখন চলছে এবং তা আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। যাতে এখান থেকে আয় কিছুটা বৃদ্ধি পায়।

- Advertisement -

রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, লকডাউনের আগে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলে প্রতিদিন প্রায় ১২০টি ট্রেন চলত। যা থেকে প্রতি মাসে প্রায় ৫০ কোটি টাকা আয় হত। এখন সেখানে প্রতিদিন মাত্র ছটি ট্রেন চলছে। যাত্রীও কম রয়েছে। তাই আয় সেভাবে হচ্ছে না। এর পাশাপাশি আগে গড়ে প্রতি মাসে যেখানে ৭০০টি মালগাড়ি চলত, বর্তমানে তা অনেকটাই বেড়েছে। জুন মাসে ৮৩৪টি মালগাড়ি চলেছে। এই সংখ্যা আরও বাড়ানোর জন্য ইতিমধ্যেই কিছু পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলে রেল জানাচ্ছে। তার মধ্যে বিভিন্ন ডিভিশনে পণ্য পরিবহণ, লোডিং, আনলোডিং আরও ভালোভাবে করতে আধিকারিকদের নিয়ে কমিটি করা হয়েছে। সেখানে সাধারণ ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে বিভিন্ন সংগঠন তাঁদের মত দিতে পারবেন। এর সঙ্গে মালগাড়ির গতিও বাড়ানো হয়েছে। তাতে দ্রুত পণ্য এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাচ্ছে। মালগাড়ির গতি প্রতি ঘণ্টায় গড়ে ২৫ কিলোমিটার থেকে বেড়ে ৪৫ কিলোমিটার হয়েছে।