শিকেয় স্বাস্থ্য়বিধি, গুজবে প্রেমেরডাঙ্গায় ভিড় জমাল শতাধিক মহিলা

107

ফেশ্যাবাড়ি: ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে নাকি টাকা এসেছে! ভোট পর্ব মিটতেই সেই টাকা পাওয়ার আশা এবং হাত খরচা প্রকল্পে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করাতে আধার কারড সহ প্রয়োজনীয় তথ্যাদি নিয়ে বৃহস্পতিবার মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের প্রেমেরডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতে জড়ো হলেন প্রায় শতাধিক মহিলা। একপ্রকার স্বাস্থ্য-বিধি শিকেয় তুলেই ভিড় জমান তারা। স্বাভাবিকভাবেই পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমসিম খেতে হয় প্রশাসনিক কর্তাদের।

মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের প্রেমেরডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েত চত্বরে ভিড় জমানো মহিলারা জানান, শুনেছি স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে নাকি টাকা ঢুকিয়ে দেওয়া হবে। এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা অনুসারে তপশিলি উপজাতি এবং জেনারেল ক্যাটাগরির মহিলাদের মাসিক ‘হাত খরচা’ প্রকল্পের আবেদন চলছে। যদিও সবটাই গুজব বলে দাবি করেছেন প্রশাসনিক কর্তারা।

- Advertisement -

স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্যা প্রমিলা রায় বলেন, ‘আমরা শুনছি ভোটপর্ব মিটতেই স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঁচ হাজার টাকা ঢুকিয়ে দেওয়া হবে। একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণানুযায়ী মহিলাদের ‘হাত খরচা’ প্রকল্পের আবেদন চলছে। তাই প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে এসেছি।’ প্রমিলা রায়ের মতোন অনেকেই জেনে বুঝে ভিড় জমিয়েছেন। যদিও অনেকেই সাত-পাঁচ না বুঝেই ভিড় জমিয়েছেন গ্রাম পঞ্চায়েত চত্বরে। তাঁরা জানান, সবাই আসছে, তাই আমিও এসেছি।

মাথাভাঙ্গা-২ ব্লক প্রশাসনের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, জেলা প্রশাসনের নির্দেশে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ও আধার কার্ডের তথ্য ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে। তাই নেওয়া হচ্ছে। অন্য কোনও বিষয় নেই।

মাথাভাঙ্গার বিডিও অনির্বাণ দত্ত বলেন, ‘বিষয়টি শুনেছি। মানুষের কাছে ভুল বার্তা পৌঁছোনোয় এমনটা হয়েছে। গ্রাম পঞ্চায়েতের তরফে কথা বলে বিষয়টি মিটিয়ে নেওয়া হয়েছে।’