উত্তরের ২৩টি পুরসভাকে ৭ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা, স্থানীয় বেকাররা কাজ পাবেন

215

পূর্ণেন্দু সরকার, জলপাইগুড়ি : লকডাউন চলাকালীন পুরসভাগুলিকে নিজের এলাকায় বেকারদের কাজ দেওয়ার জন্য অর্থবরাদ্দ করল রাজ্য সরকার। খুব শীঘ্রই রাজ্যের অধিকাংশ পুরসভা এবং পুরনিগমগুলির মেয়াদ শেষ হচ্ছে। সেখানে প্রশাসক বসতে চলেছে। বেশ কয়েকটি পুরসভার মেয়াদ শেষ হয়েছে ২০১৮ এবং ২০১৯ সালে। পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তর থেকে জানা গিয়েছে, রাজ্যের ১২৫টি পুরসভার জন্য ৮৩ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে উত্তরবঙ্গের ২৩টি পুরসভার জন্য বরাদ্দ হয়েছে ৭ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা। চলতি আর্থিক বছরে এই টাকায় পুরসভা ও পুরনিগমগুলি তাদের এলাকায় প্রস্তাবিত প্রকল্পে স্থানীয় বেকারদের দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে কাজ দেবে। লকডাউনের মধ্যে কাজ দিতে ওয়েস্ট বেঙ্গল আরবান এমপ্লয়মেন্ট স্কিমের আওতায় এই বরাদ্দ করা হয়েছে।

জলপাইগুড়ির ধূপগুড়ি, দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরের পাশাপাশি রায়গঞ্জ, মিরিক ও কালিম্পং পুরসভার মেয়াদ এই বছর শেষ হচ্ছে না। দার্জিলিং পুরসভা নিয়ে মামলা বিচারাধীন। বাকি পুরসভা ও পুরনিগমগুলির অধিকাংশের মেয়াদ চলতি মাসে শেষ হচ্ছে। কয়েকটির মেয়াদ এপ্রিলে শেষ হয়েছে। গ্রামাঞ্চলে যেমন ১০০ দিনের কাজ এখন চালু হয়েছে তেমনই পুরসভাগুলিকেও লকডাউনের মধ্যে মাস্ক, স্যানিটাইজার ব্যবহার করে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কাজ করানোর নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে। পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তরের এক আধিকারিক জানান, বর্তমান পরিস্থিতিতে পুর এলাকায় বেকারদের সাময়িক কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করতে এই প্রকল্প। পুরসভাগুলি থেকে রাজ্য পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তরে জমা দেওয়া রাস্তা মেরামত, সাফাই, নালা সংস্কারের মতো কাজগুলির মাধ্যমে এই প্রকল্প রূপায়িত হবে। উত্তরবঙ্গে শিলিগুড়ি পুরনিগমকে সবচেয়ে বেশি ১ কোটি ৮৯ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। পাহাড়ে দার্জিলিং ৪৫ লক্ষ ৫৯ হাজার, কালিম্পং ১৯ লক্ষ ৬৩ হাজার, কার্সিয়াং ১৬ লক্ষ ৪০ হাজার ও মিরিক পুরসভাকে ৬ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। জলপাইগুড়ি জেলার মাল পুরসভা ১১ লক্ষ ৬২ হাজার টাকা, ধূপগুড়ি পুরসভা ২১ লক্ষ ৫৯ হাজার টাকা এবং জলপাইগুড়ি পুরসভা ৩৯ লক্ষ ৮ হাজার টাকা পাচ্ছে। কোচবিহার জেলার তুফানগঞ্জকে ৭ লক্ষ ৭৩ হাজার, মেখলিগঞ্জকে ৫ লক্ষ ৭০ হাজার, মাথাভাঙ্গাকে ৯ লক্ষ ১৬ হাজার, হলদিবাড়িকে ৬ লক্ষ ৭৫ হাজার, দিনহাটাকে ১৪ লক্ষ ৮৩ হাজার এবং কোচবিহার পুরসভার জন্য ৩০ লক্ষ ২২ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। আলিপুরদুয়ার পুরসভা পাবে ৩১ লক্ষ ৫৬ হাজার টাকা।

- Advertisement -

উত্তর দিনাজপুরের ডালখোলা ও ইসলামপুর পুরসভাকে ২৬ লক্ষ ৪৭ হাজার টাকা করে, কালিয়াগঞ্জকে ২৪ লক্ষ ৯২ হাজার এবং রায়গঞ্জ পুরসভাকে ৭২ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। মালদার ইংলিশবাজার পুরসভা ৭৪ লক্ষ ১৮ হাজার টাকা এবং ওল্ড মালদা পুরসভা ৩৩ লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা পাচ্ছে। দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটকে ৫২ লক্ষ ৪৯ হাজার টাকা, বুনিয়াদপুরকে ১২ লক্ষ ৬৯ হাজার এবং গঙ্গারামপুর পুরসভাকে ২৮ লক্ষ ১৯ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। সরকারি নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ২০২০-২১ আর্থিক বছরের জন্য এই অর্থবরাদ্দ করা হল। জলপাইগুড়ি পুরসভার চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল সন্দীপ মাহাতো বলেন, পুরসভাগুলির অনুমোদিত প্রকল্প যেমন রাস্তা, নালা, নর্দমা সাফাইয়ে মতো কাজে ওয়ার্ড কমিটির মাধ্যমে শ্রমদিবস তৈরি করা হবে। ধূপগুড়ি পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান রাজেশ সিং বলেন, নিজেদের অনুমোদিত প্রকল্পের কাজে আমরা নিজেদের অস্থায়ী, চুক্তিভিত্তিক কর্মীদের কাজ দিয়ে থাকি। এর বাইরে স্থানীয় মানুষকেও শ্রমদিবস দেওয়া হয়।