টিকার আকাল, লম্বা লাইনে দাঁড়িয়েও টিকা পেলেন না পাঁচ শতাধিক মানুষ

75

রায়গঞ্জ: চড়ছে করনো সংক্রমণের গ্রাফ। এমতবস্থায় টিকার আকাল দেখা দিল রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে। অভিযোগ, এদিন টিকার লম্বা লাইনে দাঁড়িয়েও টিকা না নিয়েই ফিরতে হয় প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষকে। ঘটনায় ক্ষোভের পারদ চড়তে শুরু করেছে বিভিন্ন মহলে। এদিকে টিকার ভাড়ার শূন্য় হওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পরিস্থিতি সামাল দিতে টিকা নিতে আসা ব্যক্তিদের হাতে কুপন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে হাসপাতালের তরফে। আশ্বস্ত করা হয়েছে কুপন দেখিয়ে আগামীকাল তারা টিকা নিতে পারবেন।

একদিকে যখন রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের টিকার ভাড়ার শূন্য ঠিক তখনই বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সহ নার্সিংহোমেও টান পড়েছে টিকার ভাড়ারে। ঘটনায় উদ্বেগ বাড়ছে চিকিৎসক মহলে। যদিও রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল সূত্রে খবর, আগামীকাল অর্থাৎ সোমবার থেকেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। রাতেই টিকা পৌঁছে যাওয়ার কথা রয়েছে।

- Advertisement -

জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তেই টিকা নেওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে আমজনতার মধ্যে। প্রতিদিনই কমবেশি ৪০০ থেকে ৫০০ করে টিকা নিচ্ছেন। স্বাভাবিকভাবেই দ্রুততার সঙ্গে টিকার ভাড়ার শূন্য হয়ে পড়ছে। যদিও প্রতিবার টিকা শেষের আগেই ফের ভাড়ার পূর্ণ হয়ে যেত, তবে এবার তা হল না।

রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সুপার প্রিয়ঙ্কর রায় বলেন, ‘প্রথমদিকে মানুষের মধ্যে চাহিদা কম ছিল। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসতেই মানুষ অনেক বেশি সচেতন হয়ে টিকা নিতে আগ্রহী হয়েছেন। আর তাই টিকা শেষ হয়ে গিয়েছে। কারণ যা চাহিদা আছে সেই অনুযায়ী আমাদের কাছে সরবরাহ নেই। আমরা গোটা বিষয়টি জেলা শাসক সহ জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরকে জানিয়েছি। আশাকরি সোমবারের মধ্যে সব ঠিক হয়ে যাবে।’

স্বাস্থ্য দপ্তরের এক কর্তা বলেন, এদিন রাতের মধ্যে ৮ হাজার কোভিড শিল্ড এবং ৯৬০ ডোজ কো-ভ্যাকসিন পৌঁছোনোর কথা রয়েছে। যদিও এই মুহূর্তে ভ্যাকসিনের প্রয়োজন প্রায় ২৮ হাজার।