জামাইয়ের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম শাশুড়ি, নেপথ্যে পণ

740

রায়গঞ্জ, ২৭ অগাস্টঃ আচমকা শ্বশুর বাড়িতে ঢুকে ধারালো অস্ত্র নিয়ে স্ত্রীকে খুন করার চেষ্টা করলো স্বামী। মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে শাশুড়ি গুরুতর জখম হলেন। বৃহস্পতিবার করণদিঘি থানার বড়োসোহার গ্ৰামে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে। রক্তাক্ত গুরুতর জখম অবস্থায় ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে জখমকে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। জখম ওই বৃদ্ধার নাম মসরিনা খাতুন(৫০)। অভিযুক্ত জামাই খান সাহেবের বিরুদ্ধে করণদিঘি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যদিও, অভিযুক্ত জামাই পলাতক। জখম বৃদ্ধার মেয়ে নাসিমা বেগম জানিয়েছেন, বুধবার স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে তিনি বাবার বাড়ি চলে এসেছিলেন। এদিন ধারালো অস্ত্র নিয়ে স্বামী তাঁকে খুন করতে আসে। বাঁচাতে গেলে মায়ের মাথায় একাধিকবার ধারালো অস্ত্রের কোপ মেরে সেখান থেকে তাঁর স্বামী পালিয়ে যায়। গৃহবধূর দাদা আসরুল আলম বিষয়টি নিয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বিয়ের সময় পণ বাবদ ২ ভরি সোনা ও ৫০ হাজার টাকা বকেয়া থাকায় যাবতীয় গণ্ডগোলের সূত্রপাত হয়। বুধবার বকেয়া টাকা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বচসাও হয়েছিল।