পাড় ভাঙছে মুজনাই, সংকটের মুখে এশিয়ান হাইওয়ে

256

রাঙ্গালিবাজনা: মুজনাই নদীর পাড় ভাঙনে সংকটের মুখে ৪৮ নং এশিয়ান হাইওয়ে। নদী পাড় ভাঙতে ভাঙতে এখন হাইওয়ের গা ঘেঁষে বইছে। ফলে যে কোনও মুহূর্তেই এশিয়ান হাইওয়ে বিপন্ন হতে পারে বলে আশঙ্কা।

রাঙ্গালিবাজনা চৌপথির কাছে বাঁকের মুখে মুজনাইয়ের পাড় ভেঙে কয়েক বছর ধরে এগিয়ে আসছিল মুজনাই নদী। চলতি বছরে সেটি এশিয়ান হাইওয়ে ছুঁয়ে ফেলেছে। পাড়ের মাটি ধসে পড়ায় রাস্তাটি রক্ষার জন্য তৈরি করা কংক্রিটের স্ল্যাবগুলি ভেঙে পড়েছে। উপড়ে যেতে বসেছে হাই ভোল্টেজের বিদ্যুতবাহী তারের খুঁটিও।অসম, মেঘালয়, অরুণাচল প্রদেশ, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, ত্রিপুরার মতো রাজ্যগুলির সঙ্গে সড়কপথে ভারতের অন্যান্য অংশের যোগাযোগ রক্ষার অন্যতম প্রধান মাধ্যম ৪৮ নং এশিয়ান হাইওয়েটি। মূলত পণ্য পরিবহণকারী ট্রাকগুলি চলাচল করে এশিয়ান হাইওয়ে দিয়েই। এছাড়া, প্রতিবেশী দেশ ভুটানের নাগরিকরা সড়কপথে যাতায়াতের জন্য ৪৮ নং এশিয়ান হাইওয়ের ওপরই নির্ভর করেন। ভুটানের থিম্পু, পারো, ফুন্টশোলিং সহ দেশের মূল অংশের সঙ্গে সে দেশের গোমটু, পাগলি এলাকাগুলির যোগাযোগ রক্ষা করে ভারতের ওই রাস্তাটি। তাই রাস্তাটি ক্ষতিগ্রস্ত হলে বিপাকে পড়বেন ভুটানের বাসিন্দারাও।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, ওই রাস্তাটি ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হলে অসম সহ অন্যান্য রাজ্যে যেতে যানবাহনগুলিকে ধূপগুড়ি থেকে ফালাকাটা আলিপুরদুয়ার, কিংবা ফালাকাটা কোচবিহার হয়ে অসমের দিকে যেতে হবে। এতে সমস্যা বিস্তর। ধূপগুড়ি থেকে ফালাকাটা পর্যন্ত রাস্তাটি সিঙ্গল রোড। এছাড়া সেটির অবস্থাও ভালো নয়। পণ্য বোঝাই বড় বড় ট্রাকগুলির পক্ষে ওই রাস্তা দিয়ে চলাচল করা প্রায় অসম্ভব। বিশেষ করে ফালাকাটা থেকে একের পর এক কাঠের সেতু এবং চরতোর্ষার ডাইভারশন পেরিয়ে ভারী ট্রাক ও দূরপাল্লার বাসগুলির পক্ষে চলাচল একেবারেই সম্ভব নয়। এছাড়া ফালাকাটা আলিপুরদুয়ার রোডে কাঠের সেতু দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ রয়েছে। এশিয়ান হাইওয়ের (৪৮) প্রকল্প আধিকারিক জিতেন্দ্র প্যাটেল অবশ্য জানান, রাস্তাটি তত্ত্বাবধানের দ্বায়িত্বে থাকা সংস্থাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হবে।