করোনা যুদ্ধের সন্ধিক্ষণে ভারত: মুকেশ আম্বানি

257

গান্ধিনগর: করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে ভারতের লড়াই একটি গুরুত্বপূর্ণ সন্ধিক্ষণে পৌঁছেছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে সতর্কতায় শিথিলতা দেখানো কোনও মতে কাম্য নয়। করোনা-লকডাউন চালকালীন মোদি সরকার অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে যেসব পদক্ষেপ করেছে আগামী বছরগুলিতে তার সুফল মিলবে বলে আশাপ্রকাশ করেছেন রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি।

ভারতে সংক্রামিতেরর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। কয়েকটি রাজ্যে সংক্রমণের তীব্রতা বৃদ্ধির কারণে নতুন করে লকডাউন ঘোষণা হতে পারে বলে জল্পনা চলছে। স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়ে পিছিয়ে এসেছে মহারাষ্ট্র সরকার। আমেদাবাদে সংক্রমণ ঠেকাতে ফের কড়াকড়ি শুরু হয়েছে। দিল্লিতে বাজার বন্ধের জন্য কেন্দ্রকে প্রস্তাব দিয়েছে কেজরিওয়াল সরকার। এমন অবস্থায় মুকেশ আম্বানির করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সতর্কতা অবলম্বনের পাশাপাশি কেন্দ্রের আর্থিক নীতির সমর্থনে বিবৃতি যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। করোনা লকডাউন শুরু হওয়ার পর অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে ২০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। ধাপে ধাপে প্যাকেজের কয়েক লক্ষ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। যদিও অর্থনীতিতে তার প্রভাব নিয়ে প্রশ্ন তুলছে বিরোধী দলগুলি। অর্থনীতিবিদদের একাংশবাজারে নগদের যোগান বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। তবে মুকেশ আম্বানির মতো দেশের প্রথমসারির শিল্পপতি যে সরকারের আর্থিক নীতির ওপর আস্থা রাখছেন তা তাঁর বক্তব্য থেকে স্পষ্ট। পণ্ডিত দীনদয়াল পেট্রোলিয়াম ইউনিভার্সিটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ভারতে করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই নির্নায়ক স্তরে পৌঁছেছে। এই দেশ অতীতে বহু প্রতিকূলতার মুখোমুখি হয়েছে। প্রতিবার আমাদের জনগণ ও সংস্কৃতি সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করেছে। করোনা সংক্রমণ ভারতের সামনে নতুন সম্ভাবনার দরজা খুলে দিয়েছে। উদ্বিগ্ন না হয়ে সকলের উচিত আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে এগিয়ে যাওয়া। আর্থিক বৃদ্ধির অভূতপূর্ব সূযোগকে কাজে লাগাতে পারলে আগামী দু-দশকে ভারত বিশ্বের প্রথম ৩টি অর্থনীতির মধ্যে জায়গা করে নিতে পারবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

- Advertisement -