অনেক উত্তর উহ্য রেখেই ঘাসফুলে প্রত্যাবর্তন মুকুল রায়ের

123

কলকাতা: ঘরের ছেলে ঘরে ফিরলেন। কার্যত এই ভাষাতেই একসময়ের সঙ্গী মুকুল রায়কে তৃণমূলে স্বাগত জানালেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তৃণমূল ভবনে মুকুল রায়কে পাশে বসিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে মমতা জানান, তাঁর সঙ্গে মুকুল রায়ের কোনও বিরোধ ছিল না। পাশাপাশি মুকুলকে দলে ফিরিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর উক্তি ‘ওল্ড ইজ অলওয়েজ গোল্ড’। এদিন মুকুল রায়কে উত্তরীয় পরিয়ে স্বাগত জানান তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভ্রাংশু রায়কেও উত্তরীয় পরিয়েদেন তিনি। বরাবরই বাকপটু হিসেবে পরিচিতি মুকুল রায় এদিন দল বদলে খুব একটা কিছু বলতে চাননি। বলেন, ‘বিজেপিতে থাকতে পারব না তাই তৃণমূলে ফিরেছি।’ এখন যা পরিস্থিতি হয়েছে তাতে বিজেপিতে কেউই থাকতে পারবে না বলে জানান তিনি।

যদিও ২০১৭ সালের ৩ নভেম্বর দল বদলে বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নিয়েছিলেন মুকুল। তার পর থেকে বিভিন্ন সময় পুরনো দলকে নানা প্রসঙ্গে তীব্র আক্রমণ করেছেন। এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে সেই প্রসঙ্গ উঠতেই কার্যত নীরবই থাকেন মুকুল। মমতার সুরে সুর মিলিয়ে শুধু বলেন, তাঁর সঙ্গে কখনই মমতার বিরোধীতা ছিল না। মমতাও মুকুলকে সার্টিফিকেট দিয়ে জানিয়ে দেন, নির্বাচনের আগে মুকুল কখনও তৃণমূলের বিরুদ্ধে কিছু বলেননি। এদিন মুকুল প্রসঙ্গে বিভিন্ন প্রশ্ন নিয়ে অস্বস্তি ছিল তৃণমূল নেতৃত্বের মধ্যে। অনেক প্রশ্নই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বভাবসিদ্ধভাবেই এড়িয়ে গিয়েছেন। তবে তিনি জানিয়ে দেন যাঁরা নির্বাচনের আগে দলের সঙ্গে ‘গদ্দারি’ করেছেন তাঁদের ফেরাবে না দল। তবে যাঁরা ‘ভদ্র’ তাঁরা ফিরতে চাইলে দল সিদ্ধান্ত নেবে। অনুগামীদের দলে ফেরা সম্পর্কেও মুকুল জানান, কারা কারা আসতে চাইছে, তা পরে জানা যাবে। এই প্রসঙ্গে শুভেন্দুর নাম উঠে আসতেই সরাসরি প্রেস কনফারেন্স শেষ ঘোষণা করে দেন মমতা।

- Advertisement -