পণের টাকা না পেয়ে বধূকে খুন হেমতাবাদে

127
Forensic investigator working at a crime scene

হেমতাবাদ: পণের টাকা না পেয়ে গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠল স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে হেমতাবাদ থানার রনহট্টা গ্রামে।

পেশায় অটোচালক তসলিম আলির সঙ্গে হেমতাবাদ থানার পূর্ব রনহট্টা গ্রামের বাসিন্দা মাজেদা খাতুনের বিয়ে হয়। তাঁদের ১৮ মাসের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। বিয়ের মাস তিনেক যেতে না যেতেই মাজেদা খাতুনকে বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ সৃষ্টি করতে থাকেন স্বামী তাসলিম আলি। টাকা না পেলে প্রায়ই মাজেদাকে মারধর করা হত বলে অভিযোগ। সম্প্রতি অটো কেনার জন্য মাজেদাকে প্রায় দু’লক্ষ টাকা বাপের বাড়ি থেকে আনার চাপ দিতে থাকেন তসলিম। কিন্তু সেই টাকা না পেয়ে মাজেদার ওপর অত্যাচারের মাত্রা আরও বাড়িয়ে দেন স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। অভিযোগ, রবিবার সকালে মাজেদাকে বিষ মেশানো খাবার দেন স্বামী তসলিম আলি। এরপর স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

- Advertisement -

ওই গৃহবধূর চিৎকারে প্রতিবেশীরা সেখানে ছুটে আসেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় মাজেদাকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করান তাঁরা। সেখান থেকে তাঁকে কলকাতায় রেফার করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। তবে তার আগেই সেখানে মৃত্যু হয় মাজেদার। মৃত্যুর আগে হাসপাতালে জবানবন্দি দিয়ে গিয়েছেন তিনি। এদিকে, ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্তরা। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন হেমতাবাদ থানার আইসি কৃষ্ণেন্দু দাস।