সম্প্রীতির নজির, নজরুলের গ্রামে হিন্দু প্রতিবেশীর সৎকারে মুসলিমরা

831

রাজা বন্দ্যোপাধ্যায়, আসানসোল: ‘মোরা একই বৃন্তে দুটি কুসুম হিন্দু-মুসলমান।’ কবি কাজি নজরুল ইসলামের কথারই যেন প্রমাণ দিলেন তাঁরই গ্রামের বাসিন্দারা। হিন্দু প্রতিবেশীর সৎকারে এগিয়ে এলেন মুসলিমরা। পশ্চিম বর্ধমান জেলার আসানসোলের চুরুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীন দেশের মহান গ্রামে তৈরি হল সম্প্রীতির অনন্য নজির।

চুরুলিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের চুরুলিয়া গ্রাম কবির জন্মস্থান। একই গ্রাম পঞ্চায়েতের দেশের মহান গ্রামে ২৩০টি পরিবারের বাস। তারমধ্যে ১টি পরিবার হিন্দু। বাকিরা মুসলিম। শনিবার বার্ধক্যজনিত রোগের কারণে রামধনু রজক নামে হিন্দু পরিবারের এক বৃদ্ধ অসুস্থ হয়ে পড়েন। চিকিৎসার জন্য তাঁকে দুর্গাপুরে নিয়ে যান মুসলিম প্রতিবেশীরা। কোনও হাসপাতাল ভর্তি না নেওয়ায় শেষে রামধনু রজককে রানিগঞ্জের একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। বিকেল চারটে নাগাদ তিনি সেখানে মারা যান।

- Advertisement -

বাড়ির সকলে বাইরে থাকায় বৃদ্ধ রামধনু রজকের দেহ সৎকারের দায়িত্ব নিজেদের কাঁধে তুলে নেন  গ্রামবাসীরা। রবিবার হিন্দু রীতি মেনে সৎকার করা হয়। বৃদ্ধের ছেলে রামবিলাস রজক জানান, বাবার মৃত্যুর সময় তিনি বাড়িতে ছিলেন না। সৎকারের পাশাপাশি তাঁর অসুস্থ বাবাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া, সবই করেছেন মুসলিম প্রতিবেশীরা।