মোস্তফার ‘মন বেড়িতে’ বাঁধা বনের ময়না

111

রাঙ্গালিবাজনা: লালনের ‘অচিন পাখি’ না হোক, অন্ততপক্ষে বনের পাখির পায়ে ভালোবাসার বেড়ি পরাতে পেড়েছেন আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাটের দলদলিয়ার যুবক মোস্তফা হোসেন। কয়েক মাস আগে পাকা রাস্তার পাশে একটি ছোট্ট ময়নাকে পড়ে থাকতে দেখেছিলেন তিনি। কাকে ঠুকরে খাওয়ার চেষ্টা করছিল সেটিকে। এরপর ময়নাকে ঘরে নিয়ে আসেন মোস্তফা। শুশ্রূষায় ধীরে ধীরে সেরে ওঠে ময়না। একসময় উড়তেও শেখে। কিন্তু আজও উড়ে যায়নি পাখিটি। গত সাত মাস ধরে মোস্তফার পরিবারের পাকাপোক্ত সদস্য। ওর জন্য রয়েছে ভিআইপি বন্দোবস্ত। খাদ্য তালিকায় রয়েছে নানা সহজপাচ্য ফল। ঘুরে বেড়ানোর জন্য মোস্তফার নরম বিছানাই উন্মুক্ত পাখিটির জন্য। কাজকর্মে ব্যস্ততার সময়ও মোস্তফার কাঁধে চেপে থাকে ময়না। একটু এদিক ওদিক গেলে মোস্তফার ডাক শুনতেই গুটি গুটি পায়ে হাজির হয় তাঁর কাছে।

পেশায় পল্লীচিকিৎসক মোস্তফা এর আগে একটি শালিককেও শুশ্রূষা করে সুস্থ করে তোলেন। কয়েকদিন পর সেটিকে বাইরে ছেড়ে দেন। তবে কিছুক্ষণ পর জানালা দিয়ে সেটি ফের ঢুকে পড়ে মোস্তফার ঘরে। এবার তাঁর সাথী বনের ময়না। মোস্তফা জানান, এই আনন্দ ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়।

- Advertisement -