প্রত্যাবর্তনের স্পর্ধায় ছুটি নাদাল-বার্টির

মেলবোর্ন : একদিনে জোড়া অঘটন। কোয়ার্টার ফাইনালে হেরে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন থেকে বিদায় নিলেন রাফায়েল নাদাল ও অ্যাশলে বার্টি। প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে এগিয়ে গিয়েও তাঁদের প্রত্যাবর্তন ঠেকাতে ব্যর্থ দুজনেই।

ছেলেদের বিভাগে দ্বিতীয় বাছাই নাদাল গোটা টুর্নামেন্টে একটিও সেট হারেননি। তার উপর প্রতিপক্ষ স্টেফানোস সিৎসিপাসের বিরুদ্ধে শেষ তিন সাক্ষাতে সহজেই জিতেছেন ২০ গ্র্যান্ড স্লামের মালিক। ফলে বুধবারও তার অন্যথা হবে না বলে মনে করা হয়েছিল। এদিন প্রথম দুই সেটে জিতে সমর্থকদের মুখের হাসি চওড়া করেছিলেন নাদাল। কিন্তু দুরন্ত প্রত্যাবর্তন করে লাইমলাইটে সিৎসিপাস। আর রজার ফেডেরারকে গ্র্যান্ড স্লামের সংখ্যায় ছাপিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে অপেক্ষা বাড়ল এই স্প্যানিশ মায়েস্ত্রোর।

- Advertisement -

 

এদিন ৪ ঘন্টা ৫ মিনিটের লড়াই শেষে সিৎসিপাস জিতলেন ৩-৬, ২-৬, ৭-৬ (৭-৪), ৬-৪, ৭-৫ সেটে। হারের জন্য টাইব্রেকারে ঠিকমতো পারফর্ম না করতে পারাকেই দুষছেন নাদাল। বললেন, টাইব্রেকে আমি কয়েকটা মিস করেছি। সেটা একেবারেই আমার বিপক্ষে গিয়েছে। আমাকে বাড়ি ফিরে আরও ভালোভাবে অনুশীলন করতে হবে। অন্য কোয়ার্টার ফাইনালে স্বদেশি আন্দ্রে রুবলভকে ৭-৫, ৬-৩, ৬-২ সেটে হারিয়ে সেমিফাইনালে গেলেন ডানিল মেদভেদেভ। ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে ডানিলের প্রতিপক্ষ সিৎসিপাস।

অবশ্য নাদালের আগেই টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিলেন মেয়েদের বিভাগে শীর্ষবাঁছাই বার্টি। নাদালের মতো তিনিও আগের চার রাউন্ডে একটিও সেট খোয়াননি। এদিন ক্যারোলিনা মুচোভার বিরুদ্ধে প্রথম সেট ৬-১-এ জিততে সময় নিয়েছিলেন মাত্র ২৪ মিনিট। কিন্তু পরের দুই সেট খোয়ালেন ৩-৬, ২-৬ পয়েন্টে। চলতি প্রতিযোগিতায় প্রাক্তন ফরাসি ওপেন জয়ী জেলেনা ওস্টাপেঙ্কো, প্রাক্তন এক নম্বর ক্যারোলিনা প্লিসকোভার পর বর্তমান এক নম্বর তথা গতবারের ফ্রেঞ্চ ওপেন চ্যাম্পিয়ন বার্টির ছুটি করলেন মুচোভা।

এদিন প্রথম সেটের পর মেডিকেল টাইমআউট নিলেন মুচোভা। ম্যাচের শেষে বললেন, প্রথম সেটের শেষদিকে আমার মাথা ঘোরাচ্ছিল। চিকিৎসা করানো ছাড়া অন্য কোনও রাস্তা ছিল না। তবে ব্রেক নেওয়ার পর সমস্যা কাটিয়ে ফিরি। তবে এজন্য তাঁকে কোনও দোষ দিচ্ছেন না বার্টি, এর আগে আমার বহু প্রতিপক্ষই খেলার মাঝে মেডিকেল টাইমআউট নিয়েছে, আমিও নিয়েছি। আর এটা তো নিয়মের বাইরের কিছু না। ওর (মুচোভা) প্রয়োজন ছিল তাই নিয়েছে।

অন্য ম্যাচে এদিন মার্কিন জেসিকা পেগুলার স্বপ্নের দৌড় থামিয়ে দিলেন তাঁর স্বদেশীয় জেনিফার বার্ডি। একইসঙ্গে গত অগাস্টে সিনসিনাটিতে হারের বদলাও নিলেন। ১০০ মিনিট লড়ে ৪-৬, ৬-২, ৬-১ সেটে ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালে মুচোভার মুখোমুখি হলেন বার্ডি।