নকশালবাড়িতে টোল প্লাজায় হামলা, মুহূর্তে রণক্ষেত্র এলাকা

109

নকশালবাড়ি: গাড়ি চালকদের সঙ্গে বিরোধের জেরে ধুন্ধুমার কাণ্ড বাঁধল নকশালবাড়ির হাতিঘিসা টোল প্লাজায়। টোল প্লাজায় যথেচ্ছে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠল গাড়ি চালকদের একাংশের বিরুদ্ধে। দু পক্ষের সংঘর্ষে মুহুর্তের মধ্যে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে গোটা এলাকা। হাতে লম্বা বাঁশ ও লাঠি নিয়ে ছোটাছুটি করতে দেখাযায় দুপক্ষের লোকজনকেই। এতে দু-পক্ষের জখম হয়েছেন মোট ৬ জন। এদের মধ্যে তিনজন টোল প্লাজা কর্মী ও তিনজন গাড়ি চালক বলে জানা গেছে। জখমদের মধ্যে তিনজনকে একটি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়েছে। সম্প্রতি বিভিন্ন টোল প্লাজাতে ফাসট্যাগের মাধ্যমে টোলের টাকা জমা করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

এদিন সকালবেলা বাগডোগরা বিমানবন্দর থেকে আসা একটি প্রাইভেট ট্যাক্সির ফাসট্যাগের ব্যালেন্স না থাকায় তাকে জরিমানা দিয়ে নগদ ক্যাশ কাউন্টারের লাইন দিয়ে যেতে বলেন টোল প্লাজার কর্মীরা। কিন্তু ওই চালক এমনটা করতে অস্বীকার করেন। ফলে দুপক্ষের মধ্যে বিবাদ সৃষ্টি হয়। এর মধ্যে হটাৎ প্রায় দুশো জন যুবক টোল প্লাজার উপর হামলা চালায়। ডিএসপি গ্রামীণ অচিন্ত্য গুপ্ত জানান, পুরো ঘটনার তদন্তের জন্য তিন জনের দল গঠন করা হয়েছে। বাগডোগরা বাস মিনিবাস ওয়েল্ফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক ভোলা ঘোষ জানান আজকের ঘটনায় বাস চালকরা কোনও ভাবেই যুক্ত নয়। তবে টোল ট্যাক্স নিয়ে গাড়ি চালকদের চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান। যেখানে মাসে আমাদের এক হাজার দিতে হয় সেখানে আমাদের তিন হাজার টাকা দিতে হচ্ছে। টোল প্লাজার কর্মীদের বিরুদ্ধে দুর্ব্যাবহারের অভিযোগও এনেছেন চালকরা। টোল প্লাজার মালিক হরি শর্মা তাঁকে হুমকি দিয়েছেন বলেও অভিয়োগ করেন ভোলা ঘোষ। অন্যদিকে টোল প্লাজার ঘটনায় এশিয়ান হাইওয়েতে এদিন প্রায় এক ঘন্টা যাতায়াত বন্ধ হয়ে পড়ে। হাতিঘিসা টোল প্লাজার মালিক হরি কিষাণ জানান, সব কাউন্টার ভেঙে ফেলা হয়েছে। অফিসে ঢুকে কর্মীদের মারধর করা হয়েছে।।

- Advertisement -