নন্দীগ্রাম মামলা: নির্বাচন সংক্রান্ত নথি সংরক্ষণের নির্দেশ আদালতের

102
সংগৃহীত ছবি

কলকাতা: নন্দীগ্রাম কেন্দ্রে ভোটের ফলাফল পুনর্বিবেচনা সংক্রান্ত মামলা পদ্ধতি মেনেই দায়ের হয়েছে, বুধবার নন্দীগ্রাম মামলার শুনানিতে এমনটাই জানিয়েছেন বিচারপতি শম্পা সরকার। পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনকে মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ওই কেন্দ্রের নির্বাচন সংক্রান্ত সমস্ত নথি সংরক্ষণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আদালত জানিয়েছে, এ বিষয়ে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক ও নন্দীগ্রামের রিটার্নিং অফিসারকে নোটিশ দেওয়া হবে। সেইসঙ্গে মামলার অপরপক্ষ শুভেন্দু অধিকারীকে নোটিশ দিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আইনজীবীকে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি। আগামী ১২ অগাস্ট মামলার পরবর্তী শুনানি।

বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে সামান্য ভোটে পরাজিত হন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর ভোটপদ্ধতি ও গণনা নিয়ে প্রশ্ন তুলে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন মমতা। নন্দীগ্রামে ভোটের ফলাফল নিয়ে তিনি মামলা দায়ের করেন। মামলার শুনানি হওয়ার কথা ছিল বিচারপতি কৌশিক চন্দের এজলাসে। কিন্তু তাঁর এজলাসে মামলার শুনানিতে আপত্তি জানান মুখ্যমন্ত্রী। কৌশিকবাবু আইনজীবী থাকাকালীন তাঁর সঙ্গে বিজেপির সুসম্পর্ক থাকার অভিযোগ তোলেন তিনি। এরপর মুখ্যমন্ত্রীর তরফে প্রধান বিচারপতির কাছে অন্য এজলাসে মামলার শুনানির আবেদন করা হয়। এরপর বিচারপতি কৌশিক চন্দ নিজেই মামলা থেকে সরে দাঁড়ান।

- Advertisement -

৭ জুলাই বিচারপতি এক নির্দেশে জানান, তিনি মামলাটি শুনবেন না। কিন্তু মামলাকারী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে কলকাতা হাইকোর্টের একজন বিচারপতির নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তাতে ভারতীয় বিচার ব্যবস্থার মর্যাদা ক্ষুণ্ণ হয়েছে। সেই কারণে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা করেন। পাশাপাশি তিনি জানিয়ে দেন, মামলার শুনানি কোন এজলাসে হবে, সেবিষয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি হাইকোর্টের রোস্টার মেনে সিদ্ধান্ত নেবেন। এরপর কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মামলাটি শুনানির জন্য বিচারপতি শম্পা সরকারের বেঞ্চে পাঠান। গত সোমবার হাইকোর্টের তরফে জানানো হয়, বিচারপতি শম্পা সরকারের এজলাসে মামলার শুনানি হবে।

ওই বেঞ্চেই বুধবার মামলাটি শুনানির জন্য ওঠে। বিচারপতি শম্পা সরকার জানান, ১২ অগাস্ট মামলার পরবর্তী শুনানি। তবে মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নন্দীগ্রাম কেন্দ্রের ভোট সংক্রান্ত সমস্ত নথি সংরক্ষণ করতে হবে নির্বাচন কমিশনকে। ইভিএম, ভিভিপ্যাটও সংরক্ষণ করতে হবে।