সাংবাদিকের ছেলেকে অপহরণ করে খুন, পুলিশের জালে অভিযুক্ত

561
প্রতীকী ছবি

নিউজ ডেস্ক: এক সাংবাদিকের ছেলেকে অপহরণ করে খুন। ঘটনাটি ঘটেছে তেলেঙ্গানার মহবুদাবাদে। মৃত শিশুটির নাম দীক্ষিত রেড্ডি। হায়দরাবাদ থেকে ২২০ কিমি দূরে অবস্থিত মহবুদাবাদ। সেখানকার টিভি জার্নালিস্ট রনজিত্‍ রেড্ডির ছেলে দীক্ষিত।

পরিবার সূত্রে খবর, গত ১৮ অক্টোবর বিকেলে বাড়ির কাছেই এক বন্ধুর সঙ্গে খেলছিল নয় বছরের দীক্ষিত। প্রতিবেশী এক মেকানিক যুবক তাঁকে গাড়িতে চাপিয়ে ঘুরতে নিয়ে যাবে বলে নিয়ে যান। তারপর থেকে আর কোনও হদিশ মেলেনি দীক্ষিতের। সেখানেই শেষ দেখা গিয়েছিল তাঁকে।

- Advertisement -

গত ২১ অক্টোবর বুধবার, ওই শিশুটির হদিশ মেলে কিন্তু তাকে পাওয়া যায় মৃত অবস্থায়। রবিবার বিকেলে খেলার পরও যখন সে বাড়ি না ফেরে তখনই পুলিশের কাছে মিসিং ডায়েরি করে তাঁর পরিবার। পুলিশ জানিয়েছে, শিশুটির অপহরণের পিছনে চেনা কোনও আত্মীয় বা পরিচিত ব্যক্তির হাত রয়েছে। আর সেই অনুমানই স্পষ্ট হয়ে যায় বুধবার।

পুলিশ সূত্রে খবর শহর ছাড়িয়ে গোপন জায়গায় অভিযুক্ত মান্ডা দীক্ষিতকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। যে রাস্তা দিয়ে শিশুটিকে গাড়ি করে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, সেখানে কোনও সিসিটিভি ক্যামেরা ছিল না। বুদ্ধি করেই সিসিটিভি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল সে। সেখানে শিশুটিকে বেঁধে রাখা হয়েছিল। তবে মান্ডারের ভয় ছিল, দীক্ষিত ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা তাঁকে চিনে ফেলতে পারে। সেই কারনে মুক্তিপণ চাওয়ার পরই শিশুটিকে শ্বাসরোধ করে খুন করে সে। তারপর প্রমাণ লুকোনোর জন্য গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় সে।

ইন্টারনেট কলে ৪৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চেয়ে দীক্ষিতের পরিবারকে ফোন করে মান্ডা। আর তাঁর এই ভুলই তাকে পুলিশের জালে ধরা দিতে সাহায্য করে। ইন্টারনেট কলে ফোন করার পরই আইডি ট্র্যাক করেই অপহরণকারীর কাছে পৌঁছে যায় পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার মান্ডাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।