নতুন বছরের শুরুতেই নৌকাবিহারের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে

198

ময়নাগুড়ি: নতুন বছরের গোড়াতেই পর্যটকের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ময়নাগুড়ি ব্লকের নৌকাবিহার। শীতের মরসুমে দূর দূরান্ত থেকে মানুষের আনাগোনা শুরু হয়েছে। গতবছরের সমস্ত রেকর্ড ছাপিয়ে এই বছরে উপচে পড়েছে মানুষের ঢল। করোনা আতঙ্ক থাকলেও নতুন বছরের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে ভিড়ের ছবিটা তুলনায় অনেকটা বেশি।

প্রকৃতির সৌন্দর্যের মাঝে ময়নাগুড়ি ব্লকের পানবাড়ি এলাকায় জলঢাকা, মূর্তি, ডায়না নদীর সঙ্গমস্থলে রয়েছে অন্যতম এই পর্যটনকেন্দ্র নৌকাবিহার। পাশে জঙ্গল থাকার দরুণ জলপথে ভ্রমণের সময় কখনও দেখা মেলে বন্যপ্রাণী বাইসন, হরিণ, গণ্ডার, হাতির। আবার শীতের সময়ে বাড়তি পাওয়া হিসেবে রয়েছে পরিযায়ীদের আগমন। ইতিমধ্যে পরিযায়ীদের নানারকম প্রজাতির আগমন ঘটেছে নৌকাবিহার সংলগ্ন এলাকায়। পর্যটন দপ্তরের তরফে নৌকাবিহারে সৌন্দর্যায়নের কাজ শুরুর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল। তবে করোনা পরিস্থিতিতে তা থমকে গিয়েছে। গত কয়েক বছর আগে এই এলাকায় কয়েকটি কটেজও তৈরি করা হয়েছিল। তবে তা বন্ধ হয়ে থাকার পর ফের ময়নাগুড়ি পঞ্চায়েত সমিতির তরফে নতুন রূপে সাজিয়ে তোলার চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই পর্যটন দপ্তর ও ময়নাগুড়ি ব্লকের প্রশাসনিক দল এলাকা পরিদর্শন করে গিয়েছে।

- Advertisement -

স্থানীয় বাসিন্দা তথা নৌকাবিহারের সঙ্গে ওতোপ্রোতভাবে জড়িত অনন্ত রায়, মদন রায়েরা জানান, নৌকাবিহারের নতুন করে সৌন্দর্যায়ন করলে এলাকার বিকাশ ঘটবে, অনেকের কর্মসংস্থানও হবে। অনেক মানুষ যাঁরা এখানে আসেন, রাত্রিবাসের ব্যবস্থাও রয়েছে। তবে, এই মুহুর্তে তা বন্ধ থাকলেও প্রশাসনের তরফে এই পর্যটন কেন্দ্রটি ঢেলে সাজাবার কাজ শুরু হয়ে গেলে এলাকার আরও বিকাশ হবে। ময়নাগুড়ি ব্লকের মধ্যে সেরা পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে পরিগণিত হচ্ছে এই নৌকাবিহার। সেটিকে নতুন করে সাজিয়ে তোলা হলে আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠবে এই পর্যটন কেন্দ্রটি। এলাকায় জলঢাকা নদীর চড়ের জায়গা জুড়েই জমে উঠেছে পিকনিক। এই পিকনিকের মরসুমে এবারের রেকর্ড ভিড় লক্ষ্য করা গিয়েছে। অন্যদিকে, ময়নাগুড়ির পর্যটন ব্যবসায়ী উজ্জ্বল শীল জানান, ময়নাগুড়ি ব্লকের মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয় নৌকাবিহার। নতুনভাবে সেটি সাজিয়ে তোলা হলে আরও চাহিদা বাড়বে।

এই বিষয়ে ময়নাগুড়ি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শিবম রায় বসুনিয়া জানান, দ্রুত নৌকাবিহারে কাজ শুরু করা হবে। নদী ঘুরপথে চলে আসায় কিছুটা সমস্যা রয়েছে। তবে এই জায়গাকে আরও কয়েকধাপ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য নতুনভাবে সাজিয়ে তোলার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে, যা পর্যটনের বিকাশে একটি নতুন দিশা দেখাবে।