সেতু উদ্বোধনের প্রাক্কালেই নয়া রুটে বাসের তালিকা প্রকাশ এনবএসটিসির

2509

হলদিবাড়ি: শীঘ্রই উদ্বোধন হতে চলেছে তিস্তানদীর উপর নির্মিয়মান রাজ্যের দীর্ঘতম জয়ী সেতুর। আর এই সেতুর উদ্বোধন হলে উন্মুক্ত হবে বিভিন্ন নতুন রুটের। আর সেই সব নতুন রুটে সরকারি বাস পরিসেবা প্রদানের ক্ষেত্রে প্রস্তুতি তুঙ্গে এনবিএসটিসির। ইতিমধ্যেই নতুন রুট নির্ধারণ করে বাসের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে এনবিএসটিসির তরফে। মেখলিগঞ্জ মহকুমার সীমান্তবর্তী দুই ব্লক হলদিবাড়ি ও মেখলিগঞ্জের ঠিক মাঝ বরাবর উত্তর থেকে দক্ষিণ দিকে প্রবাহিত হয়েছে তিস্তানদী। এতদিন সেতু না থাকায় এই নদী দুই ব্লকের যোগাযোগের অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেই সমস্যা সমাধানে দুই ব্লকের পাশাপাশি কোচবিহার জেলা শহরের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নে জোরকদমে তিস্তানদীর উপর চলছে জয়ী সেতুর নির্মাণ কাজ। সব ঠিকঠাক থাকলে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের নিঘন্ট ঘোষণার আগেই প্রশাসনের তরফে সেতুর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে। উন্মুক্ত হবে যোগাযোগের নতুন দিগন্ত।

শনিবার জয়ী সেতু পরিদর্শন করলেন পূর্ত দপ্তরের চিফ ইঞ্জিনিয়ার(হেডকোয়ার্টার) অমিতাভ সেনগুপ্ত। তিনি বলেন, সেতুটির উদ্বোধন হলে আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থারও উন্নয়ন ঘটবে। যোগাযোগের সুবিধার জন্য নতুন শিল্প স্থাপনে আগ্রহী হবেন শিল্পপতিরা। ব্যবসা বানিজ্যের প্রভূত উন্নয়ন হবে। এই সেতুর মাধ্যমে শুধুমাত্র হলদিবাড়ি ও মেখলিগঞ্জ ব্লকের বাসিন্দারাই নন, পার্শ্ববর্তী জেলার বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ উপকৃত হবেন।

- Advertisement -

মেখলিগঞ্জের বিধায়ক তথা এনবিএসটিসির ভাইস চেয়ারম্যান অর্ঘ্য রায় প্রধান বলেন, খুব শীঘ্রই সেতুটির উদ্বোধন করা হবে। সেতুটি উদ্বোধন হলে বেশ কয়েকটি নতুন রুট উন্মুক্ত হবে। সেই সব রুটে বাস চালালে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি পরিবহন সংস্থা উপকৃত হবে। সংস্থার আয় বৃদ্ধি পাবে। তাই ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি রুট তৈরি করে পরিসেবা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জলপাইগুড়ি ডিপো সূত্রে জানা গিয়েছে ,জয়ী সেতুর উপর দিয়ে উত্তরবঙ্গের মোট চারটি ডিপো থেকে বাস চালানো হবে। কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, শিলিগুড়ি ও ময়নাগুড়ি এই চারটি ডিপো থেকে নতুন বিভিন্ন রুটে সরকারি বাস পরিসেবা প্রদান করা হবে। এরমধ্যে কোচবিহার ও জলপাইগুড়ি ডিপোর দুইটি করে বাস। শিলিগুড়র তিনটি ও ময়নাগুড়ি ডিপোর একটি সহ মোট আটটি বাস চালানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। জয়ী সেতুর উপর দিয়ে নতুন রুটে সরকারি বাস চালানোর সিদ্ধান্তে খুশি মেখলিগঞ্জ মহকুমার মানুষ।

কোচবিহার ডিপোর দুইটি বাস মাথাভাঙ্গা ও মেখলিগঞ্জ সহ জয়ী সেতু হয়ে হলদিবাড়ি পর্যন্ত আসবে। একইভাবে গাড়ি দুটি হলদিবাড়ি থেকে একই রুট হয়ে কোচবিহারের উদ্দেশ্যে রওনা দিবে। শিলিগুড়ি ডিপো থেকে একটি গাড়ি জলপাইগুড়ি, হলদিবাড়ি হয়ে মেখলিগঞ্জ যাবে। এই ডিপোর দ্বিতীয় গাড়িটি জলপাইগুড়ি, হলদিবাড়ি ও মেখলিগঞ্জ হয়ে সিতাই যাবে। তৃতীয় গাড়িটি জলপাইগুড়ি, হলদিবাড়ি ও মেখলিগঞ্জ হয়ে ধাপড়া যাবে। একই রুট হয়ে গাড়ি তিনটি পুনরায় শিলিগুড়ি ডিপোতে ফিরে যাবে। ময়নাগুড়ি ডিপোর একটি গাড়ি জলপাইগুড়ি, হলদিবাড়ি ও মেখলিগঞ্জ হয়ে ধাপড়া পর্যন্ত যাবে। একই রুট হয়ে পুনরায় ময়নাগুড়ি ডিপোতে ফিরে যাবে। জলপাইগুড়ি ডিপো দুটি গাড়ি হলদিবাড়ি হয়ে মেখলিগঞ্জ পর্যন্ত যাবে। আবার একই রুটে জলপাইগুড়ি ডিপোতে ফিরে আসবে। উদ্বোধন হতে যাওয়া তিস্তানদীর জয়ী সেতুকে কেন্দ্র করে প্রতিটি রুট তৈরি করা হয়েছে।

উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার হলদিবাড়িতে দ্বায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মী কল্যাণ সাহা জানান, আপাতত এই সব রুটে পরিসেবা প্রদানের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে রুটের বৃদ্ধি ও গাড়ির সংখ্যা বৃদ্ধি করা হবে। এরজন্য জলপাইগুড়ি ডিপোতে নতুন বাসও এসে গিয়েছে। হলদিবাড়ি থেকেই এই রুটের গাড়িগুলি নিয়ন্ত্রণ করা হবে।