গান্ধিজির প্রয়াণদিবসে উত্তাল গডসে-প্রেম

126

নয়াদিল্লি: ১৯৪৮ সালে আজকের দিনে কট্টর হিন্দুত্ববাদী বলে পরিচিত নাথুরাম গডসের গুলিতে নিহত হন গান্ধিজি। গান্ধিজির জন্ম ও মৃত্যুদিনে তাঁর হত্যাকারী নাথুরাম গডসেকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়া এবং এক শ্রেণির রাজনীতিকদের মধ্যে প্রবল উন্মাদনা দেখা যাচ্ছে গত ৬ বছর ধরে। এবারও তার ব্যতিক্রম ঘটল না।

শনিবার জাতির জনকের ৭৩তম প্রয়াণবার্ষিকীতে তাঁকে শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি গডসেকে বীরের মর্যাদা দেওয়ার হিড়িক পড়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। হ্যাশট্যাগ নাথুরাম গডসে অমর রহে ট্রেন্ড ছিল টুইটারে। কেউ লিখেছেন, নাথুভাই দেশকে বাঁচিয়েছেন। কেউ আবার লিখেছেন, তাঁর কাছে জাতির জনক মহাত্মা গান্ধি নন, নাথুরাম গডসে। এর আগে হিন্দু মহাসভার তরফে গডসে লাইব্রেরি খোলা হয়েছিল। প্রশাসন অবশ্য পরে তা বন্ধ করে দেয়। কিন্তু তারপরও গান্ধিজিকে কোণঠাসা করতে গডসে-প্রেমের পরিমাণ ক্রমশ যে বাড়ছে তাতে বিস্মিত দেশের একটা বড় অংশের মানুষ।

- Advertisement -

শনিবার গান্ধির প্রয়াণ দিবসে তাঁকে স্মরণ করল দেশবাসী। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি প্রমুখ গান্ধিজির প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করেন। রাজঘাটে মহাত্মার সমাধিতে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। সেখানে হাজির ছিলেন উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু এবং একাধিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। রাষ্ট্রপতি টুইটবার্তায় লিখেছেন, আমাদের সকলের উচিত মহাত্মা গান্ধির শান্তি, সহজ সরল জীবনয়াপন, অহিংসার আদর্শ মেনে চলা। আসুন, আমরা সবাই ওঁর দেখানো সত্য ও প্রেমের পথে হাঁটি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইটারে লিখেছেন, বাপুর আদর্শ আজও কোটি কোটি মানুষকে অনুপ্রাণিত করে। যাঁরা দেশের স্বাধীনতা এবং প্রতিটি ভারতীয়র সুন্দর জীবনের জন্য আত্মত্যাগ করেছিলেন, সেই সমস্ত মহান পুরুষ ও মহিলাদের শহিদ দিবসে স্মরণ করি আমরা। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী প্রয়াত রাজীব গান্ধির একটি ভিডিও টুইটারে শেয়ার করার পাশাপাশি মহাত্মা গান্ধিজির একটি উক্তি উদ্ধৃত করে টুইট করেছেন রাহুল গান্ধি। তাতে লেখা হয়েছে, সত্য কারও সমর্থন ছাড়াই সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে পারে। কারণ তা আত্মনির্ভর।