তুফানগঞ্জ স্টেশনে চালু নতুন রেক পয়েন্ট

581

তুফানগঞ্জ: রেলের নতুন রেক পয়েন্ট চালু হওয়ায় খুশি শ্রমিকরা। তুফানগঞ্জ-১ ব্লকের নাককাটিগাছ গ্রাম পঞ্চায়েতের চামটা এলাকায় তুফানগঞ্জ রেলস্টেশন তৈরির সময় থেকেই ছিল রেক পয়েন্ট। তবে কয়েক বছর কেটে গেলেও রেক পয়েন্ট চালু ছিল না।

রেলের অনুমতি না পাওয়ায় কোনওরকম মাল ট্রেন আসছিল না। স্টেশনে প্রায় দেড় মাস আগেই রেক পয়েন্ট চালু হয়। রেক পয়েন্ট চালু হওয়ায় স্থানীয় শ্রমিকদের কাজের দিশা দেখাচ্ছে রেল। তুফানগঞ্জের বেশিরভাগ শ্রমিকই কাজ করে ভিনরাজ্যে। ভিন রাজ্যে কাজে গিয়ে লকডাউনের জেরে কাজ হারিয়েছেন অনেকেই। কাজ হাড়িয়ে বাড়ি ফিরে এসেছেন শ্রমিকরা। বাড়িতে ফিরেও তেমন কোনও কাজ পাওয়ায় দীর্ঘ সময় কর্মহীন হয়ে পরেন তাঁরা।

- Advertisement -

রেলের রেক পয়েন্ট চালু হওয়ায় কপাল খুলেছে স্থানীয় শ্রমিকদের। এখন তুফানগঞ্জের শ্রমিকদের কাজের দিশা দেখাচ্ছে রেল। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি সিমেন্ট কোম্পানি তাদের মাল খালি করছে তুফানগঞ্জ স্টেশন থেকে। সপ্তাহে ন্যূনতম তিনটি মাল গাড়ি আসছে তুফানগঞ্জে। সিমেন্টের রেক খালি করেই দিন গুজরান করছে শ্রমিকরা। আগামীদিনে রেলকে হাতিয়ার করে কাজের নতুন ডেসটিনেশন হয়ে উঠেছে তুফানগঞ্জ।

বর্তমানে তুফানগঞ্জ রেলস্টেশনে রাজ্য তথা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সিমেন্ট এর কোম্পানি আসছে তুফানগঞ্জে। সিমেন্ট ছাড়াও বিভিন্ন বড় কোম্পানিগুলি তুফানগঞ্জ রেল স্টেশনে মাল খালি করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে জানা গিয়েছে। রেলের রেকে মাল খালি হওয়ায় পরিযায়ী শ্রমিকরা কাজ কর্মসংস্থানের রাস্তা খুঁজে পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। লক ডাউনের মধ্যে কাজ পেয়ে খুশির আলো দেখছেন বলে জানান রেকে কর্মরত সকল শ্রমিকরা।

প্রতিদিন প্রায় তিনশ শ্রমিক ট্রেনের মাল আনলোড করছেন। তুফানগঞ্জ রেলস্টেশনে শ্রমিকের কাজে নিযুক্ত শ্রমিক বাবু বর্মন, অজিত দাস জানান, তুফানগঞ্জে রেলের রেক চালু হওয়ায় নতুন করে কর্মসংস্থান দেখা দিয়েছে। প্রতিনিয়ত মালগাড়ি আসছে তুফানগঞ্জে। সপ্তাহে তিন থেকে চারদিন করে কাজ করতে পেয়ে খুবই আনন্দিত। লক ডাউনে শ্রমিকের কাজ করে হলেও পরিবারের মুখে সামান্য ডাল ভাত তো তুলে দিতে পারব।

তাঁরা আরও জানান, প্রতিবছর পুজোর পরই চামটা ও কামাতফুলবাড়ি থেকে প্রচুর শ্রমিক ভিন রাজ্যে পাড়ি দিত। স্থানীয় এলাকাতেই কর্মসংস্থান হওয়ায় আমাদের আর বাইরে যেতে হবে না। তাই এই শ্রমিকের কাজই বেছে নিয়েছি। ভিন রাজ্যে গিয়ে শ্রমিকের কাজ করার থেকে বাড়িতে থেকেই শ্রমিকের কাজ করা শ্রেয়। রেলই তুফানগঞ্জে কর্মসংস্থানের দিশা দেখাচ্ছে। আমরা সকল পরিযায়ী শ্রমিকরা বর্তমানে খুশির আলো দেখছি।

পাশাপাশি পরিবারের পাশে থেকে শ্রমিকের কাজ করে হলেও পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে পারছি। তুফানগঞ্জ রেল স্টেশন সূত্রের খবর, কয়েকমাস আগেই এই রেলে রেক পয়েন্ট চালু হয়েছে। রেক পয়েন্ট চালু হওয়ায় স্থানীয় শ্রমিকদের কর্মসংস্থানও বেড়েছে। বর্তমানে সপ্তাহে তিনটি মালগাড়ি আসলেও পরে তা বাড়বে বলে অনুমান।