হাতি তাড়াতে অভিনব ব্যবস্থা গরুমারায়

123

লাটাগুড়ি: অত্যাধুনিক আর্লি অ্যালার্মিং সিস্টেম বসানোর কাজ শুরু হল গরুমারায়। শনিবার ধুপঝোরায় এই কাজের সূচনা করলেন গরুমারা বন্যপ্রাণী বিভাগের এডিএফও জন্মেজয় পাল।

লোকালয়ে হাতির হামলায় প্রায়শই ফসল, ঘরবাড়ির ক্ষতির পাশাপাশি মৃত্যুর ঘটনাও ঘটছে। সমস্যা সমাধানে গরুমারা জঙ্গল লাগোয়া পানঝোরা ও ধুপঝোরা বনবস্তিতে এই অত্যাধুনিক আর্লি অ্যালার্মিং সিস্টেম বসতে চলেছে। একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে বন দপ্তর এই সিস্টেমটি বসাতে চলেছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সভাপতি কৌস্তভ চৌধুরী জানান, সংগঠনের সদস্য শিমু সাহা ও তিনি যৌথভাবে এই সিস্টেমটি তৈরি করেছেন। জানা গিয়েছে, আনব্রেকেবল সোলার এনারজাইজার তারের ফেন্সিংয়ের মাধ্যমে পানঝোরা বনবস্তির তিন কিলোমিটার ও ধুপঝোরা বনবস্তির আড়াই কিলোমিটার ঘেরা হবে। কৌস্তভ চৌধুরী জানান, এই এনারজাইজার তারের সংস্পর্শে হাতি এলে জোরে সাইরেন বেজে উঠবে। এতে বন দপ্তরের কর্মী ও গ্রামবাসীরা সজাগ হয়ে যাবেন। পাশাপাশি সোলার এনারজাইজারের সংস্পর্শে এলে হাতিও পালিয়ে যাবে।

- Advertisement -

গরুমারা বন্যপ্রাণী বিভাগের এডিএফও জন্মেজয় পাল জানান, কোনও তারের ফেন্সিং লাগাতে গেলে খুঁটির প্রয়োজন হয়। তবে সেগুলো হাতি খুব সহজেই ভেঙে ফেলতে পারে। তবে এখানে ব্যবহার করা খুঁটিগুলো আনব্রেকেবল। ফলে এগুলো একইভাবে দীর্ঘদিন কাজ করবে।